Breaking News

হিন্দু-মুসলিমকে এক করার লক্ষ্যে রোজা রাখছেন অভিনেতা ভাস্বর! রমজানের শুভেচ্ছা জানালেন কাশ্মীরি ভাষায়।

নিজস্ব প্রতিবেদন: হিন্দু-মুসলিম এই দুই ধর্মকে এক করার প্রচেষ্টা বহুদিনের। দীর্ঘদিন ধরে বিশিষ্ট ব্যক্তি-বর্গরা এই চেষ্টা করে গিয়েছেন। সম্প্রতি আবারও এই চেষ্টার মধ্যে শা-মিল হলেন অভিনেতা ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়। আর তার জন্য একটি অভি-নব পন্থা গ্রহণ করেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত রমজান শুরুর পর থেকেই রোজা রাখছেন এই অভিনেতা।১৩ এপ্রিল থেকে ১২ মে পর্যন্ত রোজা রাখবেন এই অভিনেতা।যেকোনো ইসলাম ধর্মাবলম্বী মানুষদের মতোই এই অনুষ্ঠান অত্যন্ত নি-ষ্ঠার সঙ্গে পালন করছেন তিনি। কিন্তু একজন হিন্দু ধর্মা-বলম্বী ব্রাহ্মণ হওয়া সত্ত্বেও এই ধরণের সি-দ্ধান্ত কেন নিলেন ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়?

ভা-স্বর জানিয়েছেন,”মন থেকে চাই হিন্দু-মুসলিম এক হোক। এক সঙ্গে সবাই সব পরব মানুন।আমাদের ইন্ডা-স্ট্রির অনেক মুসলিম মেকআপ আর্টিস্ট, ড্রেসার রোজা রেখে কাজ করেন দিনের পর দিন। আমি না হয় আমার মতো করে ওঁদের প্রতি আমার ভালবাসা, সম্মান ফেরত দিলাম”! উল্লেখ্য এই প্রথমবারের রোজা তিনি উৎ-সর্গ করেছেন কাশ্মীরিদের উদ্দেশ্যে। কারণ, বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই কা-শ্মীরি ভাষা শিখছেন অভিনেতা।নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট থেকে এই ভাষাতেই সকলকে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ভাস্বর।

অভিনেতার কাশ্মীরি ভাষায় শুভেচ্ছা এবং গাওয়া গান দেখে কাশ্মীরের বিখ্যাত শিল্পী ইশফক কাওয়া অভিভূত হয়ে পড়েছেন। স্বয়ং অভিনেতা ভাস্বর জানান,ইনস্টাগ্রামে কাওয়া নিজেই তার সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। এই বিখ্যাত শিল্পীর থেকে কাশ্মীর যাওয়ার আমন্ত্রণও পেয়েছেন অভিনেতা।

উল্লেখ্য দেশভাগ বরাবর থেকেই ভাস্বরকে ক-ষ্ট দিয়ে থাকে।তাই ধর্ম এবং উৎসব এক করে দেওয়ার মাধ্যমে সব রকম বিভা-জন শে-ষ করে দিতে চান তিনি। তার রোজা রাখা নিয়ে পরিবারের সদস্যদের মতা-মত প্রসঙ্গে অভিনেতা জানিয়েছেন,”আমার উপোস বাবার নাপ-সন্দ। পরব মানা নয়। লোকনাথ বাবা নিজেও কোর-আন পাঠ করতেন।লোকনাথ বাবার এই আচরণ আমায় ছুঁ-য়ে গিয়েছিল। তাঁর থেকে অনু-প্রাণিত হয়েই আমার এই পদ-ক্ষেপ”।

Check Also

হে’রে গেলেন তারকা প্রার্থী সায়ন্তিকা, হেরে গিয়ে কেঁ’দে চোখ ভা’সালেন অভিনেত্রী , তু’মু-ল ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ২০২১ এর হা-ই-ভো-ল্টেজ বিধানসভা ভোটের ফলাফল ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়ে গেছে এবং ক্ষ-ম-তায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *