Breaking News

গ-র্ভাব’স্থায় যে ৭টি খাবার খেলে গর্ভের সন্তান হয় দারুণ ফর্সা ও বুদ্ধিমান-মেধাবী!

নিজস্ব প্রতিবেদন:গ-র্ভা-বস্থায় থাকা একটি মায়ের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এই সময়ে হবু মায়ের উচিত সবসময় নিজের শরীরের যত্ন নেওয়া। কারণ সঠিক ভাবে যত্ন না নিলে কখনোই একজন সুস্থ এবং স্বাভাবিক শিশুর জন্ম হবে না।অনেকেই শিশুর জন্মের ক্ষেত্রে গায়ের রং-এর প্রসঙ্গ তুলে থাকেন।দেখা যায় ফর্সা গায়ের রঙ হলে তাকে অধিক গুরুত্ব দেওয়া হয় এবং কালো গায়ের রং হলে অনেক ক্ষেত্রেই তাকে বঞ্চনা করা হয়।

কিন্তু এটি একেবারেই উচিত নয়।মাতা-পিতার জিনের ওপর নির্ভর করেই একজন শিশুর গায়ের রং নির্বাচিত হয়। তবে বিশেষ কিছু কার্যকলাপ রয়েছে যা গায়ের রং এর উপর প্রভাব ফেলে থাকে। তাই গর্ভা-ব-স্থায় থাকাকালীন অবশ্যই কিছু কর্মকান্ড থেকে হবু মাকে বিরত থাকা উচিত। আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন এর মাধ্যমে আমরা সেই বিষয়গুলি জেনে নেব।

প্রথমত যদি আপনি গর্ভ-বতী হয়ে থাকেন তাহলে অ্যালকোহল কখনোই গ্রহণ করবেন না। এটি গ-র্ভব-তী মায়ের শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকারক। এই সময়ে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার অবশ্যই চেষ্টা করবেন। দ্বিতীয়ত, প্রতিদিন নিয়ম মেনে আধঘন্টা সময় ব্যায়াম করার চেষ্টা করুন। এতে গর্ভে থাকা শিশুর ব্রেন এর গঠন এবং শারীরিক গঠন ভালো হবে।

অনেক আগেই বৈজ্ঞানিকরা এই সময়ের জন্য নানান ধরনের ব্যায়াম এর উল্লেখ করেছেন। চাইলে আপনি আলাদা করে চিকিৎসকের পরামর্শও নিতে পারেন। তৃতীয়ত, কিছু কিছু খাবার মায়ের স্বাস্থ্যকে ভালো রাখতে সাহায্য করে। এবং অনেক ক্ষেত্রেই শিশুর ত্বকের বর্ণকে নিয়ন্ত্রণ করে। যেমন— জাফরান দুধ। প্রতিদিন নিয়মিত ভাবে এই দুধ পান করলে শিশুর গায়ের রং ফর্সা হয়।

চতুর্থত, নারিকেলের সাদা শাঁস গর্ভে থাকা শিশুর রং এর উপর প্রভাব বিস্তার করে। তবে এই সময় অত্যন্ত নারিকেল খাওয়া একেবারেই উচিত নয়। তাই এই পদ্ধতিটি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।পঞ্চমত, শরীরকে সবসময় সুস্থ রাখতে এবং গর্ভে থাকা শিশুর শারীরিক গঠন ভালো রাখার জন্য হবু মা দুধ পান করতে পারেন। ধারণা অনুযায়ী এটি শিশুর ত্বকের রং এর উপরেও প্রভাব ফেলতে পারে। ষষ্ঠত,ডিমের মধ্যে অত্যধিক পুষ্টিগুণ থাকার কারণে এটি গর্ভাবস্থায় মায়ের জন্য অত্যন্ত উপকারী।

পাশাপাশি ডিমের সাদা অংশ গর্ভে থাকা শিশুর ত্বকের রঙ ফর্সা করতে সাহায্য করে।তাই চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে পরিমানমতো ডিম খেতে পারেন।তবে ডিমের ঝোল রান্না করলে তাতে অতিরিক্ত তেল মশলা না দেওয়ার চেষ্টা করবেন। সপ্তমত, চেরি ও বেরি জাতীয় কিছু ফলে অতিরিক্ত মাত্রায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যা ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করতে পারে।

আপনি গ-র্ভব-তী হলে এই ফলগুলি খেয়ে দেখতে পারেন। অষ্টমত অথবা সর্বশেষ পদ্ধতি হিসেবে আমরা বলবো টমেটোর কথা।গ-র্ভা-বস্থায় থাকার সময় টমেটো খেলে এটি শিশুর উজ্জ্বল বর্ণ হতে সাহায্য করে। কারণ টমেটোতে উপস্থিত লাইকোপেন সূর্যের প্রখর রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে।

এই প্রসঙ্গে একটি বিষয় জানিয়ে রাখি, গায়ের রং এর মাধ্যমে কোন দিন মানুষের সৌন্দর্য বিচার করা যায় না। সৌন্দর্য বিচার প্রধানত হয় আচার-ব্যবহার এবং মনের পরিছন্নতা দেখে। তাই যদি কখনো শিশুর গায়ের রং কালো হয় তাহলেও তাকে হেয় করবেন না।বরং মায়ের সব সময় চেষ্টা করা উচিত যে যতটা সম্ভব শারীরিকভাবে সুস্থ একজন শিশুর জন্ম দেওয়ার। এই শিশুরাই আমাদের দেশের ভবিষ্যৎ তাই যেভাবে হোক তাদেরকে সুস্থ এবং স্বাভাবিকভাবে জন্ম দেওয়াই একজন মায়ের কর্তব্য।

About 24Ghanta News

Check Also

মাত্র 10,000 টাকা পুঁজিতেই শুরু করতে পারবেন এই 25 টি ব্যবসা! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-বিভিন্ন ধরনের কারণে ত্বকের মধ্যে বয়সের ছাপ সৃষ্টি হয় তার পাশাপাশি একাধিক যাবতীয় সমস্যা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *