Breaking News

পুরোনো 25 পয়সার এমন কয়েন থাকলে মিলতে পারে কয়েক হাজার টাকা, যেখানে এই পয়সা জমা করলে হতে পারেন লাখপতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-হঠাৎ করে লাখপতি হতে চায় অনেকের । অনেকের এটা স্বপ্ন থেকেই থাকে যে রাতারাতি অনেক টাকার মালিক হয়ে যাবে সে । কিন্তু এই কথাটি অবাস্তব শোনালেও বর্তমান যুগে কিন্তু বাস্তবে । তার জন্য অবশ্যই আপনার কাছে থাকতে হবে পুরনো কিছু কয়েন । আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যারা সঞ্চয় করতে বেশি ভালোবাসেন পুরনো জিনিস । যেখানে দেখতে পাবে সেই সমস্ত জিনিস গুলো নিয়ে সযত্নে সেগুলিকে আলাদাভাবে রেখে দেয় অনেকে এবার তাদের জন্য এই সুখবর ।

সম্প্রতি এমন একটি বিজ্ঞপ্তি উঠে এসেছে খবরের শিরোনামে যা দেখে প্রত্যেকেই নিজের বাড়িতে চিরুনি তল্লাশি শুরু করে দিয়েছে । কারন সে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে পুরনো দিনের ২৫ পয়সার কয়েন যদি আপনার বাড়িতে থেকে থাকে তাহলে আপনি রাতারাতি দেড় লক্ষ টাকার মালিক হতে পারেন ।

পুরনো দিনের ২৫ পয়সার কয়েন বর্তমান যুগে সম্পূর্ণ রকম ভাবে অচল । সেই কয়েন যদি আপনার বাড়িতে থেকে থাকে তাহলে আপনি কিন্তু অনেক টাকার মালিক হতে পারবেন । তবে শর্ত সাপেক্ষ হিসেবে বলা হয়েছে যে কয়েনটিকে রুপোলি হতে হবে । অর্থাৎ আগেকার দিনে ব্যবহৃত হতো যে রুপোলী কয়েন সেই কয়েন যদি আপনার থেকে থাকে তাহলে আপনি সেটি indiamart.com আপলোড করে নিলামে তুলতে পারেন ।

যে ব্যক্তি সবথেকে বেশি দাম দেবে সেই কয়েনটি তার হয়ে যাবে । শুধুমাত্র ২৫ পয়সা নয় তার পাশাপাশি পাঁচ টাকা দশ টাকার কয়েন নিলামে তোলা হচ্ছে এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে । এর জন্য অতি অবশ্যই আপনাকে সেই ওয়েবসাইটে নিজের একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে । এবং তথ্য প্রমাণ দিতে হবে । এছাড়াও আপনার কাছে যদি থেকে থাকে এক টাকার নোট তাহলে আপনি পেয়ে যেতে পারবেন নগদ ৪৫ হাজার টাকা । তবে সেই ক্ষেত্রে আছে কিছু শর্ত, ওই 1 টাকার নোটে থাকতে হবে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী এইচ.এম প্যাটেলের স্বাক্ষর। ১৯৭৭ থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত অর্থমন্ত্রী ছিলেন হিরুভাই মুল্লজিভাই প্যাটেল আর তারই স্বাক্ষর থাকতে হবে ওই বিশেষ নোটের মধ্যে ।

About 24Ghanta News

Check Also

সিজারে বাচ্চা নেওয়ার অপর নাম নীরব মৃ-ত্যু (মিস করবেন না স্বামী স্ত্রী দুজনেই পড়ুন)!!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-সাধারণত একটি ভ্রূ-ণ ধীরে ধীরে মাতৃগর্ভে বড় হয়ে উঠতে সময় লাগে দশ মাস দশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *