Breaking News

দারুন কায়দায় গাজরের লোভ দেখিয়ে বড় খরগোশ ধরলেন এক যুবক,ব্যাপক ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন:সকাল থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত হাতে মোবাইল ফোন না নিলে যেন আমাদের চলেই না। অনেক বিশেষজ্ঞরা তো বর্তমান যুগে সোশ্যাল মিডিয়াকে গণমাধ্যমের থেকেও বেশি শ-ক্তি-শালী বলে মনে করছেন। কারণ হিসেবে বলা যায় সম্প্রতি মানুষ টেলিভিশন, রেডিও প্রভৃতির থেকেও বেশি নির্ভর হয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাপ্লিকেশনগুলির উপর।আট থেকে আশি কেউই বাদ যাননি এই দল থেকে।

সব বয়সের মানুষই এই সোশ্যাল মিডিয়ার আনন্দ উপভোগ করছেন। যদিও ব্যতিক্রম কিছু মানুষও রয়েছেন। এরপর আসা যাক সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ পাওয়া ভাইরাল ভিডিও গুলির কথায়।এই ভাইরাল ভিডিওগুলির সংখ্যা ক্রমাগত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীর সংখ্যার নিরিখে বেড়েই চলেছে।

হাসি মজা থেকে শুরু করে প্রায় সব ধরনের ভিডিও এখানে দেখতে পাওয়া যায়। এর আগেও সোশ্যাল মিডিয়াতে আমরা বিভিন্ন ধরনের ভিডিও দেখেছি। সম্প্রতি নেট নাগরিকদের মাঝখানে ভাইরাল হলো আবারও একটি ভিডিও। এই ভিডিওতে খুব অসাধারণ ভাবে কাঠের সাহায্য নিয়ে জাল তৈরি করে খরগোশ ধরার পদ্ধতি শেয়ার করেছেন এক যুবক।প্রথমে তার এই আবিষ্কার নিয়ে নেটিজেনদের মনে সন্দেহ থাকলেও;ভিডিওটির শেষে তা একেবারেই নিরসন হয়ে গিয়েছে।

ভাইরাল এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটি কাঠের ভাঙা অংশের সাহায্যে অসাধারণ কায়দায় দড়ি এবং লাঠি লাগিয়ে জাল তৈরি করেছেন সেই যুবক। এরপর বনাঞ্চলের একটি নির্দিষ্ট জায়গায় এটিকে প্রতিস্থাপন করে দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে কিছুক্ষণ সময় অন্তর দেখা যায় সেই জালের উপর থাকা গাজর দেখতে পেয়ে সেটি খাবার লোভে জালে আটকা পড়ে গিয়েছে খরগোশ।

সাদা রঙের সেই খরগোশটি কে দেখে অত্যন্ত খুশি হয়েছেন দর্শকেরা। এমনিতেই এরা খুব নিরীহ প্রাণী। কখনোই বিশেষভাবে মানুষকে আ-ক্র-মণ করে না এরা। যার কারণে অনেক মানুষজন এই প্রাণীটিকে বাড়িতে পুষে থাকেন।যাই হোক যদি আপনি খরগোশ প্রেমী হয়ে থাকেন তাহলে নিঃসন্দেহে এই ভিডিওটি আপনি পছন্দ করতে বাধ্য হবেন। রইল সেই ভাইরাল ভিডিও।

About 24Ghanta News

Check Also

জনপ্রিয় হিন্দি গানে কোমর দুলিয়ে তুমুল নাচলেন যুবতী বৌদি! ঝড়ের বেগে ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার করে আমরা প্রত্যেকেই জনপ্রিয় হয়ে উঠতে চাই এবং এমনটা যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *