Breaking News

ডিম ও পটলের এই অসাধারণ স্বাদের রেসিপি যা অনেকেরই অজানা, খেতে হয় দারুণ টেস্টি, রইলো পদ্ধতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন:আমরা ডিম এবং পটলের তৈরি নানান ধরনের রান্না অনেক সময় খেয়েছি। এই দু’টি অত্যন্ত পুষ্টিকর খাদ্য। সাধারণত ডিম সেদ্ধ, ভাজা এবং ঝোলের মধ্যে রান্না করে খাওয়া যেতে পারে।এই রান্না গুলি থেকে অনেকটাই ব্যতিক্রম একটি রান্না আজ আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব।এই রেসিপিটি ডিম এবং পটল সম্মিলিত ভাবে তৈরি হবে। তাহলে আসুন দেরি না করে শুরু করা যাক আজকের প্রতিবেদন।

এই রান্নাটি করার জন্য প্রথমেই তিনটি বড় সাইজের পটল নিয়ে নিতে হবে। এই পটল গুলিকে খোসা ছাড়িয়ে মাঝ বরাবর চিড়ে নিন। এরপর মাঝের অংশকে একটি চামচের সাহায্যে তুলে নিতে হবে। প্রত্যেকটি পটল থেকে এভাবে তুলে নেওয়া হয়ে গেলে আলাদা পাত্রে ডিম ফেটিয়ে নিন। তারমধ্যে পরিমানমতো নুন, কাঁচা লঙ্কা কুচি, পেঁয়াজ কুচি ভাল করে মিশিয়ে নিন।

পটলের মাঝখান থেকে যে অংশটি বের করে নিয়েছিলেন সেগুলিকে টুকরো করে ডিমের মধ্যে দিয়ে দিন। এরপর কড়াইতে রান্নার তেল গরম করে নিন।তারমধ্যে চিড়ে রাখা পটল গুলিকে দিয়ে দিন। এবং পটলের মাঝ বরাবর ডিমের মিশ্রণ গুলিকে ঢেলে দিন। একেবারে লাল না হয়ে যাওয়া পর্যন্ত পটল গুলিকে ভাজতে থাকুন। যাতে কড়াইতে না লেগে যায় সেই জন্য অবশ্যই নাড়াচাড়া করবেন।

এবার কড়াইতে আরো আলাদাভাবে একটু তেল গরম করে তার মধ্যে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভাল করে ভেজে নিতে হবে। পেঁয়াজগুলি মোটামুটি ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে আদা বাটা, রসুন বাটা, টমেটো কুচি দিয়ে ভালো করে নাড়াচাড়া করে নিতে হবে। এরপর স্বল্প পরিমাণে জল মেশানোর পর এতে ভাজা পটল গুলোকে দিয়ে দিতে হবে। মিনিট দশেক সময় পর্যন্ত ফুঁটিয়ে সামান্য কিশমিশ ছড়িয়ে রান্না থেকে নামিয়ে নিন। ভাত বা রুটি যে কোন কিছুর সাথেই রান্নাটি খেতে অসাধারণ লাগবে। সম্পূর্ণ আলাদা ধরনের এই রেসিপিটি কেমন লাগলো আপনাদের তা অবশ্যই একটি ছোট্ট মন্তব্যের মাধ্যমে জানানোর চেষ্টা করবেন।

About 24Ghanta News

Check Also

সিজারে বাচ্চা নেওয়ার অপর নাম নীরব মৃ-ত্যু (মিস করবেন না স্বামী স্ত্রী দুজনেই পড়ুন)!!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-সাধারণত একটি ভ্রূ-ণ ধীরে ধীরে মাতৃগর্ভে বড় হয়ে উঠতে সময় লাগে দশ মাস দশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *