Breaking News

এসি ছাড়াই গরমে ঘর একদম এসির মতো ঠান্ডা রাখার দুর্দান্ত কার্যকরী উপায়, রইলো ভিডিও সহ!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- দিন দিন বিশ্ব উ-ষ্ণা-য়নের ফলে বেড়ে চলেছে গ-রম । প্রকৃতির উপর নির্মম অ-ত্যা-চারের ফল এটি বলতে পারেন । নির্দ্বিধায় জ-ঙ্গলের জ-ঙ্গল কেটে কংক্রিটের শহর তৈরি করছে পৃথিবীর সবথেকে উন্নত জীব মানুষ । আর তার ফল হাতেনাতে পাচ্ছে । তার সাথে সাথে আমরাও ।গরমের কবলে পড়ে রীতিমতো প্রতিবছরই প্রা-ণ হা-রায় অনেক মানুষ। বাইরে কোথাও থেকে এলে মন চায় একটু ঠান্ডাতে নিরিবিলিতে বসতে । যাদের সামর্থ্য আছে তারা তো বাড়িতে এয়ারকন্ডিশনার বা শীততাপ নিয়ন্ত্রণ য-ন্ত্র লাগিয়ে রেখে দিয়েছে ।

কিন্তু যাদের সামর্থ্য নেই তারা কি করবে? তাদেরকে সেই গ-রমের মধ্যেই দিনযাপন করতে হবে? সিলিং ফ্যান বা স্ট্যান্ড ফ্যানের হাওয়া তৃপ্তি আনতে পারে না । তাহলে উপায় কি? অবশ্যই এর কিছুটা আংশিক সমাধান রয়েছে এই প্রতিবেদনে । কারণ এই প্রতিবেদন মাধ্যমে আপনাদেরকে বলতে চলেছি যে কিভাবে বেশ কয়েকটি উপায় অবলম্বন করলে আপনি আপনার বাড়িকে ঠান্ডা রাখতে পারবেন অনেকখানি । আসুন জেনে নেবো সেগুলো কি কি। বাড়ির মধ্যে যে ভেন্টিলেটর আছে সেটিকে সবসময় পরিষ্কার রাখুন ।

বিভিন্ন ধরনের পাখি সেখানে বাসা বেধে যায় সেখানে এবং সেই জায়গাটির নোং-রা করে দেয় ।  মাথায় রাখবেন বাড়ি মধ্যে যত ভালো হাওয়া চলাচল হবে ততোই ঘর ঠান্ডা থাকবে। দ্বিতীয় যে পদ্ধতিতে সেটি হল জানলা যদি কোনো কারণে জানলা দিয়ে সূর্যের তাপ ক্রমশ বাড়ির মধ্যে প্রবেশ করে তাহলে কিন্তু বাড়ি উ-ত্তপ্ত হয়ে ওঠে । তাই গাঢ় রঙের কোন পর্দা ব্যবহার করুন জানলাতে । এতে রোদ ভেতরে প্রবেশ করতে পারে না। যদি কখনো আপনার কাচের জানলা হয় তাহলে সেই জানলার মধ্যে কিছু ঢাকা দিয়ে রাখুন ।

অর্থাৎ এক ধরনের কভার পাওয়া যায় যেগু-লি সূর্যের তাপ কে ভেতরে প্রবেশ করতে দেয় না ।এর ফলে ঘর অনেকখানি ঠান্ডা থাকবে। আগেকার দিনে ঘর ঠান্ডা রাখার জন্য ঘরে চারিদিকে মাটির কলসিতে জল ভরে রেখে দেওয়া হতো । এর ফলে যখন কোন বাতাস বইত তখন সেই মাটির কলসি সংস্পর্শে এসে গোটা ঘর ঠান্ডা হয়ে যেত । ঠিক তেমনি এর আধুনিক সংস্করণ আপনি অবলম্বন করতে পারেন ।

অর্থাৎ একটি টেবিল ফ্যানের নিচে জল বা বরফ রেখে দিতে পারেন বাটিতে করে । এবং যে হওয়া আপনার ঘরে সঞ্চারিত হবে সেটি ঠান্ডা হাওয়া হবে । যার ফলে ঘর কিছুটা হল ঠান্ডা থাকবে। ঘরের মধ্যে আবর্জনার স্তুপ একদমই রাখবেন না । বিভিন্ন ধরনের পেপার আসবাবপত্র ইত্যাদি যেগু-লি দরকার নেই সেগুলি মোটেও ঘরের মধ্যে রাখবেন না । কারণ যতক্ষণ না পর্যন্ত সুস্থ-স্বাভাবিকভাবে হাওয়া চলাচল হবে ততক্ষণ পর্যন্ত ঠান্ডা কিন্তু আসবেনা ঘরে । এই সমস্ত পদ্ধতি অবলম্বন করলে আপনি কিছুটা রেহাই পাবেন এই বী-ভ-ৎস গ-রমের হাত থেকে।

About 24Ghanta News

Check Also

সিজারে বাচ্চা নেওয়ার অপর নাম নীরব মৃ-ত্যু (মিস করবেন না স্বামী স্ত্রী দুজনেই পড়ুন)!!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-সাধারণত একটি ভ্রূ-ণ ধীরে ধীরে মাতৃগর্ভে বড় হয়ে উঠতে সময় লাগে দশ মাস দশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *