রাজের বাবা হওয়ার খবর শুনে কি বলেছিলেন তার প্রথম স্ত্রী শতাব্দী? ভাইরাল হলো ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন:সম্প্রতি কিছুদিন আগেই নিজের তৃতীয় বিবাহ বার্ষিকী পালন করলেন রাজ চক্রবর্তী এবং শুভশ্রী গাঙ্গুলী। একসাথে তিন বছর পার করে ফেলার পরেও বেশ খুশি মনেই দিন কাটাচ্ছেন তারা।অন্যান্য তারকা দম্পতিদের মত কিছু দিনের মধ্যেই বিবাহবি-চ্ছে-দের পথে হাঁটতে দেখা যায়নি রাজশ্রী জুটিকে। সম্প্রতি কিছুদিন আগেই লকডাউন চলাকালীন সময়ে জন্ম নিয়েছে এই তারকা দম্পতির একমাত্র সন্তান ইউভান চক্রবর্তী।

তারপর থেকেই খুশির আমেজ ছড়িয়ে রয়েছে রাজ চক্রবর্তীর পরিবারে।এমতাবস্থায় রাজ কে নিয়ে মন্তব্য করে আচমকাই সংবাদ শিরোনামে এলেন তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী শতাব্দি। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য শুভশ্রীকে বিয়ে করার আগে 2006 সালে শতাব্দীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন রাজ। কিন্তু সেই সময়ে রাজের বিশেষ কোনো সম্পত্তি না থাকায় শতাব্দীর পরিবারের লোকেরা তাদের এই বিয়ে মেনে নিতে পারেননি। কিন্তু শতাব্দী রাজকে ছাড়া অন্য কাউকে বিয়ে করবে না বলেই জানিয়ে ছিলেন। শেষ পর্যন্ত পরিবারের সদস্যরা এই বিয়ে মেনে নিতে বাধ্য হয়।

বিয়ের কিছু দিন বেশ ভালো কাটলেও ধীরে ধীরে তাদের সম্পর্ক তিক্ততায় পরিণত হয়। যার ফলস্বরুপ শেষ পর্যন্ত কিছুদিনের মধ্যেই বিবাহ বি-চ্ছে-দ হয়ে যায় এই দম্পতির। তারপর থেকে একাই জীবনযাপন করছিলেন পরিচালক। এমতাবস্থায় 2015 সালে অভিমান চলচ্চিত্রের শ্যুটিং চলাকালীন সময়ে আচমকাই শুভশ্রীর প্রেমে পড়েন রাজ। সেই সময় থেকেই দুজনের মধ্যে সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হতে শুরু করে। 2018 সালে মে মাসে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এই তারকা দম্পতি। বেশ জাঁকজমকের সহকারে বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করেছিলেন পরিচালক।

সম্প্রতি কিছুদিন আগেই মা হয়েছেন শুভশ্রী গাঙ্গুলী। তারপর থেকেই খুশির আমেজ ছড়িয়ে রয়েছে পরিচালকের পরিবারে। রাজ চক্রবর্তীর বাবা হওয়া নিয়ে এবার মুখ খুলেছেন শতাব্দি। রাজের এই প্রাক্তন স্ত্রী বলেছেন,” আমি খুবই খুশি এই খবর জানার পর। রাজ এবং শুভশ্রী সুখে থাকুক। আজ পর্যন্ত কখনোই রাজ আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করেনি। সর্বদা হাসি মুখে কথা বলেছে রাজ”। শতাব্দীর এই মানসিকতা দেখে যারপরনাই আপ্লুত হয়েছেন নেটিজেনরা।রাজ চক্রবর্তীর সাথে তার বিবাহ বি-চ্ছে-দ হয়ে যাবার পরেও তিনি যেভাবে তাকে সমর্থন করেছেন তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার যোগ্য। চাইলে আপনারাও এই ভাইরাল ভিডিওটি দেখে আসতে পারেন।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button