পরনের গোলাপি রঙের টি-শার্ট, উন্মুক্ত উরু! বাথটাবে শুয়ে দুর্দান্ত ফটোশুট অভিনেত্রী নুসরাতের! তুমুল ভাইরাল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-নুসরত জাহান ও যশ দাশগুপ্তর প্রেম কাহিনি রীতিমতো চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছে দেশজুড়ে। গত বুধবার রাতে প্রকাশ্যে এসেছে নুসরত পুত্রের পিতৃপরিচয়, ঈশানের বার্থ সার্টিফিটিকেটে স্পষ্ট লেখা তাঁর বাবার নাম দেবাশিস দাশগুপ্ত ওরফে যশ দাশগুপ্ত। নুসরতের সঙ্গে শুধু খুল্লমখুল্লা প্রেম নয়, ঈশানের বাবা হিসাবেও এবার প্রকাশ্যে এসেছেন যশ দাশগুপ্ত ।

কিন্তু অন্তঃসত্ত্বা থাকাকালীন অবস্থাতে আমরা দেখেছিলাম যে নুসরাত জাহান সম্পর্কে কিভাবে কুরুচিকর মন্তব্য পেশ করা হয়েছিল । তার পাশাপাশি সমালোচনা যেন কিছুতেই তার পিছু ছাড়ছে না । এমতাবস্থায় অভিনেত্রী নিজেকে কিছুদিনের জন্য সরিয়ে রেখেছিলেন লাইট ক্যামেরা থেকে ।।তবে বেশিদিন নিজেকে বেশিদিন সরিয়ে রাখতে পারেননি ।।আবার ফিরে এসেছেন আগের অবস্থায়।

অভিনয়জগতে সাফল্য পেল তার ব্যক্তিগত জীবনে একাধিক কাটাছেঁড়া রয়েছে ।। নিখিল এর সাথে বিচ্ছেদ হওয়ার সময়কাল থেকেই জুড়ে গেছে যশ দাশগুপ্তের নাম তার সাথে । এমনটা সকলে প্রথমদিকে মনে করছিল যশ দাশগুপ্ত তার শুধুমাত্র প্রেমিক । কিন্তু তার সন্তানের বাবা হয়ে উঠবে যশ দাশগুপ্ত সেটা হয়তো আগে থেকে কেউ অনুমান করতে পারেনি । তবে নুসরাত জাহান এবং যশ দাশগুপ্তের উপর সর্বদা নজর থাকে মিডিয়ার সাংবাদিকদের সে ব্যাপারে নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না ।

তারা কোথায় যাচ্ছে কখন কিভাবে সময় কাটাচ্ছে সবকিছু তাদের নখদর্পণে থাকে এবং তারা ক্যামেরাবন্দি করে প্রকাশ্যে আনতে চাই । তবে বেশ কিছুদিন আগে নুসরাত জাহানের যশ দাশগুপ্ত শহরের একটি হোটেলে ফটোশুট করেন ।। তার কিছুক্ষণের মধ্যেই তার ঝলকের উপস্থিতি নুসরাত জাহানের প্রোফাইল যা দেখে রীতিমতো চোখ ধাঁধিয়ে যাচ্ছে দর্শকদের ।

মঙ্গলবার দুপুরে ইনস্টাগ্রামে ঈশানের মাম্মা একটি ছবি পোস্ট করলেন ।গোলাপি রঙা লং ঝুলের টপ পরে বাথটবে শুয়ে রয়েছেন নুসরত। পায়ে গাম বুট, ফাঁস দিয়ে উন্মুক্ত চিকন উরু।টি-শার্টে লেখা রয়েছে- ‘You are what you eat’। চোখে-মুখে ফুটে উঠছে লাস্য, নুসরতকে দেখে বোঝা দায় সদ্যই মা হয়েছেন তিনি।

ছবির ক্যাপশনে সাহসিকতা ও শক্তির বার্তা দিলেন নুসরত। লেখা রয়েছে, ‘সহচেয়ে শক্তিশালী অজুহাতের থেকেও আমি বেশি শক্তিশালী । সেই ছবি দেখে বিন্দুমাত্র বোঝা যাচ্ছে না যে গত একমাস আগে তিনি মা হয়েছেন চোখে-মুখে ফুটে উঠছে আবেদনময়ী চাওনি ।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button