পড়াশোনার পাশাপাশি উপার্জন করতে চান? রইল অনলাইন ও অফলাইন রোজগারের দুর্দান্ত কিছু উপায়!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বর্তমান আমরা এই মুহূর্তে সকলেই পড়াশোনার সাথে যুক্ত রয়েছেন। কিন্তু যেভাবে আর্থিক অবস্থা ভেঙে পড়েছে প্রতিটি পরিবারের ।তাতে পার্টটাইম কোন একটা কাজ করতে পারলে আমাদের সুবিধা হতো, অন্তত নিজের হাত খরচ নিজেরাই চালিয়ে নিতে পারতাম। বাবা মায়ের উপর চাপ হতো না ।পড়াশোনা চলাকালীন আপনি অনলাইন এবং অফলাইন যে ধরনের কাজকর্ম করতে পারেন তার একটা রূপরেখা প্রদান করার চেষ্টা করা হলো আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে।

অফলাইন:- আমরা জানি যে প্রত্যেককেই এখন অনলাইনে কাজ করতে পারি, কিন্তু এমন কিছু মানুষ রয়েছে যারা অনলাইনে কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন ।তাদের জন্য যে তালিকা তুলে ধরা হলো সেই তালিকা অনুযায়ী আপনারা চেষ্টা করতে পারেন।

পঞ্চায়েত:- পঞ্চায়েত এরিয়া তে থাকে তারা বিভিন্ন ধরনের কাজ কর্মের সাথে যুক্ত হতে পারে, কারণ পঞ্চায়েতে এমন অনেক ধরনের সামরিক কাছ থেকে থাকে যে যার জন্য প্রচুর সংখ্যক শিক্ষিত ছেলেমেয়েদেরকে নিয়োগ করা হয়। তবে এটি স্থায়ী চাকরি নয়।

পৌরসভার:- মিউনিসিপালিটি এরিয়াতে থাকে তারা অতি অবশ্যই পৌরসভায় গিয়ে খোঁজ নিতে পারেন। কারণ পৌরসভাতে এমন অনেক সময় শিক্ষিত ছেলে মেয়েদের কে নিয়োগ করা হয় চুক্তিভিত্তিকে।

মেডিকেল স্টোর:- আমাদের আশেপাশে প্রতিটি এলাকাতেই প্রচুর পরিমাণে মেডিকেল স্টোর রয়েছে ওষুধ আসছে কত ওষুধ যাচ্ছে সেটার হিসেবে রাখার জন্য অনেক সময় অনেক ছাত্র-ছাত্রীদেরকে নিয়োগ করা হয়। সেখানে কথা বললে আপনি একটা কাজের ব্যবস্থা করতে পারেন, তবে সবকিছু প্রতিবেদনে বলা সম্ভব না ।কিন্তু তার তালিকা দেওয়া অবশ্যই সম্ভব, তালিকা গুলি হল-
১. ক্লিনিক
২. কলেজ
৩. বিডিও অফিস
৪. কম্পিউটার স্টোর
৫. শপিংমল
ইত্যাদিতে আপনি একটু চেষ্টা করলেই একটা পার্টটাইম চাকরি জুটিয়ে নিতে পারবেন।

এবার আসি অনলাইনে:- অনলাইনে একাধিক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। যেমন সাইবার ক্যাফে, আপনার যদি কম্পিউটারে সামান্য পরিমাণে জ্ঞান থেকে থাকে এবং বাড়িতে যদি কম্পিউটার থেকে থাকে তাহলে কিন্তু আপনি অনায়াসে একটা সাইবার ক্যাপ খুলে নিতে পারেন ছোটখাটো।

বিভিন্ন ধরনের যে সমস্ত সরকারি প্রকল্পগুলি রয়েছে সে সমস্ত প্রকল্প সম্পর্কে মানুষকে অবগত করতে গেলেও কিন্তু দরকার পড়বে একটি কম্পিউটারের। যদি তোমার কাছে কম্পিউটার থেকে থাকে তাহলে সরকারি যে সমস্ত প্রকল্পগুলি সুবিধা এই মুহূর্তে পাওয়া গেছে সেই ব্যাপারে মানুষকে অবগত করে কিন্তু আপনি একটা মাসিক উপার্জন করতে পারবেন।

আমাদের আশেপাশে বিভিন্ন শপিং মল বা দোকানে ডাটা এন্ট্রি কাজের জন্য প্রচুর পরিমাণে ছেলে নিয়োগ করা হয়, একটু খোঁজ খবর রাখলে সে সমস্ত দোকানগুলিতে আপনি ডাটা এন্ট্রি অপারেটর হিসেবে যোগ দিতে পারেন। ফেসবুকের মাধ্যমে এখন কিন্তু অনেকেই উপার্জন করছে।

শাড়ি হোক গয়না হোক প্রেম হোক বা যেকোনো ধরনের জিনিস ফেসবুক লাইভে সেগুলিকে এসে তুলে ধরা এবং সেগুলো কি বিক্রি করার মধ্যে দিয়ে কিন্তু উপার জন্য একটা পথ পাওয়া যাচ্ছে বর্তমান সময়ে। বর্তমানে ই-কমার্স সাইটগুলো জনপ্রিয়তা প্রতিদিন বেড়েই চলেছে। এই ই-কমার্স সাইট গুলোতে প্রচুর পরিমাণে ডেলিভারি বয় এমনকি বিভিন্ন পদে নিয়োগ করা হচ্ছে। অ্যামাজন এবং ফ্লিপকার্টে অতি অবশ্যই নজর রাখুন সেখানে প্রচুর পরিমাণে যুবক-যুবতীদেরকে নিয়োগ করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button