তুলকালাম শ্রীলেখা মিত্রের ফ্ল্যাটে! ফেসবুক লাইভে এসে অঝোরে কাঁদলেন তিনি! বললেন ফ্ল্যাট ছেড়ে দেবার কথা! ঝড়ের বেগে ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-মানুষ প্রতিনিয়ত হারিয়ে ফেলছে তার মানবিকতাকে। যার ফলে হয়তো রক্ত মাংস দিয়ে তৈরি করা একটা মানব শরীর রয়েছে কিন্তু তার মধ্যে থাকছে না কোন মনুষত্ব । তার প্রমাণ পাওয়া গেল আরো একবার এই ভিডিওর মাধ্যমে। শ্রীলেখা মিত্র যিনি বাংলার অভিনয় জগতে একজন দাপুটে অভিনেত্রী হিসেবে পরিচিত ।একাধিকবার বিভিন্ন মন্তব্যের জন্যে উঠে এসেছেন বিতর্কের মূল কেন্দ্র বিন্দুতে। তার পাশাপাশি তার স্পষ্ট কথার জন্য অনেকেই তাকে বলিউডের কঙ্গনা রানাউতের সাথে তুলনা করে থাকেন।

অভিনয় জগৎ থেকে এই মুহূর্তে অনেকটাই তিনি সরে এসেছেন। কিন্তু তবুও তিনি লাইম লাইটের কেন্দ্রবিন্দু থাকে সব সময়। কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়াতে রিমঝিম মিত্র এর সাথে বাকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছিলেন শ্রীলেখা মিত্র। রিমঝিম মিত্র তাকে থলথলে বৌদি বলে কটাক্ষ করেছেন। কিন্তু এই সমস্ত ঘটনা বাদ দিয়ে যদি তার পারিপার্শ্বিক চিত্রটা তুলে ধরা যায় তাহলে এমনটা দেখা যাবে যে অভিনয় জগতের পাশাপাশি তিনি একজন সারমেয় প্রেমি। রাস্তার অবলা পশুপাখি প্রাণীদেরকে যত্ন নিতে দেখা গেছে তাকে একাধিকবার এর জন্য তিনি প্রশংসিত হয়েছেন অনেকবার।

আবার কখনও কখনও কটাক্ষ শুনতে হয়েছে। তবে এবার যে ঘটনাটি ঘটলো তা চূড়ান্ত পর্যায়ে বলা যেতেই পারে।প্রতিবেশীদের সঙ্গে ব্যাপক ঝগরা বেঁধেছে অভিনেত্রী শ্রীলেখার। তিনি তার ফ্ল্যাটের নীচে প্রায়শ‌ই রাস্তার কুকুরদের খাওয়ান। এটা অত্যন্ত মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি বলে অনেকেই মনে করেন। কিন্তু এতেই বাদ সেধেছে তার প্রতিবেশীদের মধ্যে অনেকেই। যদিও রাস্তার কুকুরদের খাওয়ানো কখনোই কারো অসুবিধা সৃষ্টি করে বলে কখনোই মনে হয় না। রাস্তার কুকুরদের নিয়ে প্রতিবেশীদের সঙ্গে যথেষ্ট ঝগড়া হয়েছে অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের।

ওই সময় তিনি ফেসবুক লাইভে আসেন।লাইভে এসে তিনি হাউমাউ করে কেঁদে ফেলেন এবং বলেন যে কিছুদিন আগেই তিনি তার বাবাকে হারিয়েছেন ।যার ফলে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত তিনি ইন্ডাস্ট্রিতে অনেকেই তার ওপর রেগে রয়েছে ।কিন্তু রক্ত জল করা টাকা দিয়ে তিনি এই ফ্ল্যাট কিনেছেন তবে তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে আর এই ফ্ল্যাটে তিনি থাকবেন না। এই কমপ্লেক্স ছেড়ে দেবেন। যদিও এই মুহূর্তে শ্রীলেখা মিত্রের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে সমাজের বহু বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button