পুরনো লেপ বা কম্বল শীতে নামানোর আগে ঘরেই দারুণ কায়দায় একদম ক্লিন করে ফেলুন এই উপায়ে

আকাশ বার্তা অনলাইন ডেস্ক – ইতিমধ্যেই ধীরে ধীরে শীতের দেখা মিলতে শুরু করেছে। সকালে রোদ ঝলমলে আকাশ থাকলেও মূলত রাতের দিক থেকে ভোরবেলা তাপমাত্রার পারদ নামতে থাকায় ঠান্ডা ভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। এর মধ্যেই বেশ কিছু জায়গায় বেড়েছে ঠান্ডার তীব্রতা। আর শীতকাল মানেই ফের লেপ কম্বল এর ব্যবহার। ইতিমধ্যেই অনেক বাড়িতেই যার তোড়জোড় শুরু হয়ে গিয়েছে। মূলত বছরে একবারই শীত আসে যা ৩ থেকে ৪ মাস থেকে। আর এই সময়টা জুড়েই শুধু মাত্র লেপ কম্বলের প্রয়োজন পড়ে। আবার শীত ফুরিয়ে গেলেই সেই লেপ কম্বল তুলে রাখা হয় পরবর্তী শীত না আসা পর্যন্ত। কাজেই দীর্ঘ দিন ধরে পরে থাকায় ধুলো জমে লেপ কম্বলে। আজ জেনে নেওয়া যাক কিভাবে লেপ,কম্বল পরিষ্কার রাখা যায়। এই নিয়ম গুলি জেনে নিলে আপনি খুব সহজেই লেপ কম্বল পরিষ্কার রাখতে পারবেন।

ময়লা পরিষ্কার – দীর্ঘ দিন ধরে লেপ,কম্বল ব্যবহার না হওয়ায় স্বাভাবিক ভাবেই তাতে অনেক ধুলো জমে। সেক্ষেত্রে শীতের সময় ফের লেপ কম্বল ব্যবহার আগে তা ভালো করে পরিষ্কার করে নেওয়া উচিত। এক্ষেত্রে কোন মাদুরের ওপর লেপ বা কম্বল বিছিয়ে বা ২,৩ জন মিলে লেপ টিকে ঝুলিয়ে ধরে যদি হাত দিয়ে বা ঝাড়ু দিয়ে লেপটিকে পেটান সেক্ষেত্রে ধুলো গুলি ঝরে যায়। এছাড়াও এই কাজে পুরানো ব্রাশ ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া ভ্যাকুম ক্লিনার দিয়ে আস্তে আস্তে পরিষ্কার করতে পারেন লেপ,কম্বল গুলি।

গন্ধ দূর – মূলত দীর্ঘ দিন একজায়গায় পরে থাকার ফলে লেপ,কম্বল এ একটা ভ্যাপসা গন্ধের সৃষ্টি হয়। আর সেই কারনেই ওই অবস্থাতে তা ফের ব্যবহার করলে বারংবার এই ভ্যাপসা গন্ধ টা নাকে এসে শরীরে অস্বস্তি সৃষ্টি করে। কাজেই ফের ব্যবহারের আগে এই গন্ধ দূর করা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে সব থেকে ভালো উপায় হলো ছাদে তীব্র রোদের মধ্যে পরিষ্কার জায়গায় লেপটাকে বেশ কিছুক্ষণ রেখে দেওয়া।

পরিষ্কার জায়গা – লেপ কম্বল কখনোই খুব বেশী ধুলো ওরে এমন জায়গায় রাখতে নেই। মূলত লেপ কম্বল সবসময় সমান জায়গায় এবং পরিষ্কার স্থানে রাখা প্রয়োজন। সব থেকে ভালো হয় যদি সেটি বিছানার উপর বিছিয়ে রাখেন। সেক্ষেত্রে অব্যবহৃত বিছানা হলে বিছানার উপর তা বিছিয়ে রাখুন বা তার ওপর দিয়ে বিছানার চাদর দিয়ে ঢেকে রাখুন। এতে আপনার লেপ,কম্বল পরিষ্কার থাকবে।

লেপের দাগ পরিষ্কার – অনেক সময় ব্যবহারের ফলে বা অনেকদিন পরে থাকার ফলে দাগ পড়ে যায় লেপ কম্বলে। এক্ষেত্রে আপনি প্রফেশনাল স্পট ক্লিনিং ব্যবহার করতে পারেন কিংবা বাড়িতে করলে তুলোর লেও বা কম্বল হলে দাগ পড়া স্থান থেকে আগে তুল সরিয়ে তার পর ব্যবহার করুন। এক্ষেত্রে আপনি বেবি শ্যাম্পু বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার করতে পারেন। সেক্ষেত্রে পরিমান মতো মিশ্রণে দাগ পরা অংশটি কিছুক্ষন ডুবিয়ে রেখে পরে তা শুকনো কাপড় দিয়ে ডোলে ডোলে পরিষ্কার করে নিন।

লেপ কম্বল ধুয়ে নিন – মূলত আর সমস্ত জিনিসের মতো একই পদ্ধতিতে লেপ কম্বল ধোয়া যায়না। সেক্ষেত্রে সেগুলি ছিরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তবে মেশিন বা হাত যেকোন কিছু দিয়েই আপনি ধুতে পারবেন লেপ কম্বল তবে তা নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই পদ্ধতি।

মেশিনে ধোয়া – . এক্ষেত্রে ওয়াসিং মেশিনে ঠান্ডা জল ঢেলে তার মধ্যে ডিটারজেন্ট দিয়ে সেখানে লেপ বা কম্বল টিকে দিয়ে দিন।
.রং ও গন্ধবিহীন মাইল্ড লিকুইড ডিটারজেন্ট ব্যবহার করা আবশ্যক।
.প্রয়োজনে কালার ক্যাচার ব্যবহার করুন।
. জেন্টেল সাইকেল এ সেট করে ওয়াসিং মেশিন অন করুন।
. ২-৩ মিনিট পর্যন্ত কম্বল মেশিনে ওয়াশ করুন।

হাতে – ১. মেশিনের ঠান্ডা জল ও ডিটারজেন্ট ই এখানেও ব্যবহার করতে হবে।
. লেপ কম্বল হাতে ধোয়ার জন্য বড়ো পাত্র বা গামলা জাতীয় কিছু নিতে হবে।
.খেয়াল রাখতে হবে কম্বল বা লেপের পুরো অংশটি যেন ওই ডিটারজেন্ট জলে ডুবে থাকে।
.এমত অবস্থায় কম করে ১৫ মিনিট রাখুন। তার সাথে আলতো ভাবে কম্বলটি পরিষ্কার করুন।
. এই ১৫ মিনিট পর কম্বল টিকে ডিটারজেন্ট জল থেকে তুলে ওই জলটি ফেলে দিন।
. পুরো ফ্রেস বা পরিষ্কার জল নিন গামলাটিতে। তাতে অর্ধেক কাপ ভিনিগার মিশিয়ে ওই মিশ্রণে লেপ বা কম্বল টিকে ডুবিয়ে দিন।
. ভিনিগার কম্বল এ লেগে থাকা ডিটারজেন্ট গুলিকে ধুয়ে দেবে। কাজেই যতক্ষন না সমস্ত ডিটারজেন্ট কম্বল থেকে যাচ্ছে ততক্ষণ ভিনিগার জলে ধুতে থাকুন।

ধোয়ার পর কি করবেন –কম্বল ধোয়ার পর কখনোই তা অন্যান্য জিনিসের মতো মুছড়াবেন না। এক্ষেত্রে আলতো চিপে বেশ কিছুটা জল ঝরিয়ে খাটের উপর বা কোন বাতাস চলাচল করা পরিষ্কার জায়গার উপর একটি মোটা চাদর বিছিয়ে তার ওপর কম্বল টি দিয়ে আরো একটি চাদর তার ওপরে চাপান। এক্ষেত্রে ওই চাদর গুলি কম্বল থেকে জল শুষে নেওয়ার কাজ করবে। এছাড়াও আপনি ড্রায়ার দিয়ে শুকলে কখনোই হাই হিট দিয়ে শুকবেন না। এতে কম্বল নষ্ট হতে পারে। সবসময় লো বা মিডিয়াম হিট দিয়ে শুকান। যদিও ড্রয়ারে একেবারে শুকাবেনা কম্বল।

কম্বল ভালো রাখার উপায় –●কখনোই ধোয়ার সময় গরম জল ব্যবহার করবেন না।
●কোথাও তোলা থাকলে সেখানে ন্যাপথলি দিয়ে রাখুন।
●এক ভাঁজে বেশীদিন লেপ কম্বল রাখা থাকলে তা নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কাজেই মাঝে মাঝে ভাঁজ পাল্টাতে পারেন।
●যদি মাঝে মাঝে কম্বল রোদে দিতে পারেন তাহলে ব্যবহার না করলেও তাতে যেমন গন্ধ থাকবেনা তেমনই কম্বলটিও ভালো থাকবে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button