দরজার ওপর থেকে মা’রাত্মক বি’ষাক্ত কো’বরা সাপ উদ্ধার করতে গিয়ে একটুর জন্যে প্রাণে বাঁচলেন যুবক! ঝ’ড়ের বে’গে ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ইন্টারনেট জগতের মাধ্যমে আমরা খুব সহজেই বহির্বিশ্বের সাথে সংযোগ রক্ষা করতে পারি। যার ফলস্বরুপ বিভিন্ন জায়গায় আমরা মুঠোফোনের মাধ্যমে পৌছে যাই মুহূর্তের মধ্যে। অপরদিকে দিন— দিন সোশ্যাল মিডিয়া মানুষের এক প্রকার আসক্তিতে পরিণত হচ্ছে। যার ফলস্বরুপ অনেক মানুষ নিজেদের পারিবারিক এবং সামাজিক জীবন থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন। শুধুমাত্র তাই নয় টিনেজার এবং অনেকের মধ্যেই মানসিক অবসাদ এর পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে অতিরিক্ত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের ফলে।

এক গবেষণায় চিকিৎসকেরা এই কথাটিকে সম্পূর্ণরূপে স্বীকার করেও নিয়েছেন। সাপ সংক্রান্ত যেকোন ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় খুব দ্রুত ভাইরাল হয়ে ওঠে। সম্প্রতি একটি ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটি বাড়িতে বি-ষাক্ত কো-বরা সাপ ঢুকে গিয়েছে। বাড়িতে এই বি-ষাক্ত সা-পকে দেখে রীতিমত ভয় পেয়ে গিয়েছেন সকলে।যদিও কিছুক্ষণের মধ্যেই সেখানে সর্পরক্ষকেরা উপস্থিত হয়ে যান। সেই সর্প রক্ষক আর কেউ নয় বরং তার নাম হচ্ছে ‘বঙ্কিম’। যার নিজস্ব একটি ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে এবং তার চ্যানেলের নাম হচ্ছে ‘বঙ্কিম স্নেক সেভার’।

দুর্ভাগ্যবশত একদিন সাপ উদ্ধারে বেরিয়েছিলেন বঙ্কিম। কিন্তু তারপর বাড়ি ফেরেনি। সাপের কা-মড়ে মৃ-ত্যু হয়েছে তার। এই মর্মান্তিক ঘটনা ইতিমধ্যে সকলেই জেনে গেছেন। তবে তার এই ভিডিওটি ব্যাপকভাবে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। কারণ এখানে আপনি দেখতে পাবেন সামান্য পার্থক্যের জন্য বঙ্কিম সাপের ছোবল থেকে রেহাই পেয়ে গেল ।নইলে সেই কো-বরা সা-প রীতিমতো তার মাথাতে ছো-বল মা-রতো।

যে ভিডিওটি প্রকাশিত হয়েছিল সেটি বঙ্কিম স্নেক সেভার নামক একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে প্রকাশ করা হয়েছে। যেখানে একটি বাড়ির সদর দরজা তে কোন কারণে আটকা পড়ে যায় একটি বি-ষাক্ত কো-বরা সাপ। বাড়ির লোকেরা সেটি না দেখে দরজা বন্ধ করে দেয় যার ।ফলে শরীরের একটা অংশ দরজার ওপারে থেকে যায় ।এমতাবস্থায় গুরুতরভাবে কিছুটা হলেও আহত হয়েছিল সেই কো-বরা সাপ। কিছুক্ষণের মধ্যেই সেখানে স্থানীয় সা-পুড়ে বঙ্কিম এসে স সাপটিকে উদ্ধার করার চেষ্টা করে। পাশাপাশি সেই ভিডিওতে দেখা যায় যে অল্পের জন্য বেঁচে গেল বঙ্কিমের প্রা-ণ। কারণ সা-পটি এতটাই রে-গে ছিল যে তার মাথার ওপর ছোবল মারতে গিয়েছিল। ইতিমধ্যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে নেট মাধ্যমে অনেকখানি।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button