সমস্ত স্কুল-কলেজ খোলার বিষয়ে বড় সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-বড়োসড়ো সুখবর রাজ্যের স্কুল পড়ুয়াদের জন্য ।করোনা আবহে রীতিমতো স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল জনজীবন এবং যাতে বড় জমায়েত এড়ানো সম্ভব হয় তাই তড়িঘড়ি করে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলিকে । কিন্তু এই সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকার ফলে তাদের অভিভাবকদের এমনটা বক্তব্য যে অবিলম্বে স্কুল গুলি কে পুনরায় খোলা হোক । কিন্তু পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণে থাকলেও স্কুলগুলিতে খুলে দিলে অবস্থা আবার অবনতি ঘটতে পারে বলে এখনো পর্যন্ত রাজ্যের বুকে কোন স্কুল বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে খোলা হয়নি । কিন্তু এই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে মহারাষ্ট্র সরকার ।

গ্রামাঞ্চলে পঞ্চম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত স্কুল খুলে গিয়েছে এবং শহরাঞ্চলে অষ্টম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত স্কুল খুলে গিয়েছে। ‌ অর্থাৎ এখনো পর্যন্ত গ্রাম অঞ্চলে প্রথম থেকে চতুর্থ শ্রেণি, এবং শহরাঞ্চলে প্রথম থেকে সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত স্কুল খুলতে রাজি নয় মহারাষ্ট্র সরকার। স্বাস্থ্য আধিকারিকদের সাথে করোনা টাস্ক ফোর্স এর সাথে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।স্কুল গুলির সাথে অভিভাবকদের সাক্ষাৎ করতে হবে।

সেই সাথে কোভিড সতর্কতায় স্কুল গুলি কি কি কাজকর্ম করছে সেই ব্যাপারে অভিভাবকদের অবগত করতে হবে। এছাড়াও মহারাষ্ট্র সরকার জানিয়েছে স্কুলে যে ক্লাস করতেই হবে সেরকম কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। অভিভাবকদের সম্মতি নিয়ে তবেই স্কুলে আসতে পারে ছাত্র-ছাত্রীরা ।

এ ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে জানানো হলে তিনি জানান যে পুজোর পরে অর্থাৎ কালীপুজোর আগে স্কুল খুলে দেওয়া হবে এবং কালীপুজোর আগে সমস্ত স্কুল গুলিকে উপযোগী করে তুলতে হবে । এর জন্য রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ১০৯ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে পাশাপাশি ৭ হাজার স্কুলকে নতুনভাবে মেরামতি করার নির্দেশ দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার ।এই মর্মে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে রাজ্য সরকার । অতএব কালী পুজোর আগেই এ রাজ্যের পড়ুয়ারা আবার স্কুলে গিয়ে পঠন-পাঠন করতে পারবে এমন ঠাসা রাখা যেতে পারে ।।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button