পেট্রোল-ডিজেল সস্তা হলেও বাড়লো রান্নার গ্যাসের দাম! মাথায় হাত সাধারণ মানুষের!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- দুর্মূল্য এবং বেকারত্বের বাজারে প্রতিনিয়ত নতুন চিন্তা ঘিরে ধরছে বেকার যুবক-যুবতীদের। সমাজে প্রতিষ্ঠিত হতে গেলে এবং নিজের পায়ে দাঁড়াতে গেলে অতি অবশ্যই একটি চাকরির দরকার পড়ে। এমন কোন একটা কাজের দরকার পড়ে যেখান থেকে প্রতিমাসে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ উপার্জন করা সম্ভব। বর্তমান পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে পশ্চিমবঙ্গ এ বেকারত্বের সংখ্যা এতটা বেড়ে গেছে যে আগামী দিনে কিভাবে বেকারত্বের সংখ্যা কমিয়ে আনা যায় সে ব্যাপারে রয়েছে অনেক অনিশ্চয়তা।

তবে কিছুটা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল টাটা গ্রুপ অফ কোম্পানি। আমরা দেখেছিলাম যে ম-হামা-রী সময় রতন টাটার সংস্থা বিভিন্ন দিক থেকে ভারতবর্ষকে উপকার করার চেষ্টা করেছেন। একাধিক অক্সিজেন গ্ল্যান্ড থেকে শুরু করে ওষুধপত্র আরো যাবতীয় ভাবে উপকার করার চেষ্টা করেছে। তবে পুনরায় 10 হাজার বেকার যুবক-যুবতীদের কর্মসংস্থান দিতে চলেছে টাটা গ্রুপ অ ফ কোম্পানি।

100 টিরও বেশি শাখা নতুনভাবে উদ্বোধন করতে চলেছে এই সংস্থা যার ফলে 10 হাজার বেকার যুবতীদের কর্মসংস্থান হবে এমনটা অনুমান করা যাচ্ছে। বর্তমানে এই সংস্থার হাতে ২৫ টি রাজ্যের ১৭৫ টি শহরে ১২৮ টিরও বেশি শাখা রয়েছে। নিজেদের পরিষেবা মানুষের কাছে ভালোভাবে পৌঁছে দিতে ১০০ টি নতুন ডিজিটাল শাখা চালু করল টাটা গ্রুপের জীবন বীমা কম্পানির ‘টাটা এআইএ’ লাইফ ইন্সুরেন্স টাটা গ্রুপের এই ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি সাধারণত ব্রোকিং, বীমা সহায়ক এবং অনলাইন ব্যবসা করে থাকে।

নতুন ডিজিটাল শাখার মধ্যে ইতিমধ্যেই ৬০ টিরও বেশি শাখার কাজ শুরু হয়ে গেছে। নভেম্বরের শেষের দিকে বাকি কাজ শেষ হবে বলে জানা গিয়েছে।সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার নবীন তাহিলানি জানিয়েছেন, বর্তমানে গ্রাহকরা নিজেদের অর্থে নিরাপত্তা নিয়ে ভীষণ চিন্তিত। তাই তাদের এই চিন্তা দূর করবে এই ডিজিটাল পরিষেবা। গ্রাহকরা ভিডিও কলিং -এর মাধ্যমে সংস্থার আধিকারিকদের সাথে কথা বলে নিজেদের সুবিধা অসুবিধা জানাতে পারবেন।

এমনকি Self- service ডিজিটাল Kiosk -এর মাধ্যমে বীমার সুবিধা নিতে পারবেন। ইতিমধ্যেই ৭০ টি শাখা এমন জায়গায় চালু করা হয়েছে যেখানে এর আগে কোনো শাখা ছিল না। সব মিলিয়ে বেকার যুবক- যুবতীদের মনে আশ্বাস যোগাচ্ছে এই রিপোর্ট। সূত্রের খবর,অতিসত্বর এই কর্মসংস্থান সম্পূর্ণ করবে টাটা গ্রুপ অফ কোম্পানি।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button