60 টাকা প্রতি লিটার পাওয়া যাবে পেট্রোল! দাম কমাতে নতুন নিয়ম আনতে চলেছে কেন্দ্র! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-বিগত কয়েকদিন ধরে যে হারে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম। তাতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষ রা। রান্নার গ্যাসের দাম থেকে শুরু করে ভোজ্যতেলের দাম আকাশছোঁয়া। আগামী দিনে কিভাবে মসৃণ ভাবে জীবন যাপন করা যায় তা ভেবে কূলকিনারা পাচ্ছেন না অনেকে ।এতদিন যাবৎ কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে কোনরকম পদক্ষেপ গ্রহণ না করা হলেও সম্প্রতি এমনটাই জানা গিয়েছিল যে পেট্রোল প্রতি লিটার 5 টাকা এবং ডিজেলের উপর প্রতিষ্ঠিত 10 টাকা মূল্য কমাতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার ।তবে আরও বিস্ফোরক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে সামনের সারিতে এবার থেকে 100 টাকা দিয়ে নয় বরং 60 টাকা দিয়ে আপনি কিনতে পারবেন জ্বালানি।

এবার থেকে পেট্রোল এর পরিবর্তে ইথানল ব্যবহারের দিকে নজর দিচ্ছে সরকার প্রতিটি গাড়িতে পেট্রোল এর পাশাপাশি থানায় যেতে ব্যবহার করা যেতে পারে সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত বা পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার ।ইথানল পেট্রোলের চেয়ে ভালো জ্বালানি, স্বল্প ব্যয় স্বাপেক্ষ, দূষণমুক্ত ও স্বদেশী। এই জ্বালানি ব্যাবহার করলে দেশের অর্থনীতি অনেকটা এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে। বর্তমানে প্রতি লিটার পেট্রলে ৮.৫ শতাংশ ইথানল মেশানোর অনুমতি রয়েছে। ২০১৪ সালে এই পরিমাণ ছিল ১.৫ শতাংশ। আখ ও ভুট্টা গাছ ইথানল তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। যেহেতু এটি পরিবেশ থেকে প্রাপ্ত তাই তাই একে পরিবেশ বান্ধব হিসাবে মনে করা হয়।

কেন্দ্রীয় পরিবহনমন্ত্রী নীতিন গড়করি জানিয়েছেন যে প্রতিটি গাড়িতে আগামী দু এক মাসের মধ্যে ফ্লেক্সফিল্ড যাতে ব্যবহার করা যেতে পারে তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে । পেট্রোল ইঞ্জিনের পাশাপাশি জাতীয় ব্যবহার করা যেতে পারে সেই বিষয়ে নজর দিচ্ছে তারা । বিদেশে বিভিন্ন গাড়িতে এই ধরনের ডবল ইঞ্জিনের ব্যবস্থা থেকে থাকে । যেহেতু ইথানল পেট্রোল এর তুলনায় অনেক সহজলভ্য এর দাম ভারতীয় বাজারে কম হবে । প্রায় ৪০ শতাংশ কমে যাবে পেট্রোলের দাম এবং প্রতি লিটার এটি পাওয়া যেতে পারে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা দরে।

যার ফলে সাধারণ মানুষের সুবিধা হবে অনেকখানি। ইতিমধ্যে বিভিন্ন গাড়ি নির্মাণ সংস্থা গুলিকে কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে এমনটা নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে আগামী সময়ে লঞ্চ করা নতুন গাড়ি গুলিতে অতি অবশ্যই ডবল ইঞ্জিনে ব্যবস্থা থাকতে হবে। এই ঘটনা সামনের সারিতে উঠে আসার পর রীতিমতো অনেকেই আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button