অবসরের সময় মাসে মাসে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকবে, আজই বিনিয়োগ করতে পারেন এই সরকারি স্কিমগুলিতে

আকাশবার্তা অনলাইন ডেস্ক: চাকুরিজীবীদের বার্ধক্য বয়স নিয়ে কোনো চিন্তা না থাকলেও চিন্তায় পরতে হয় অন্যান্য ক্ষেত্রে নিযুক্ত প্রবীন নাগরিকের। এক্ষেত্রে তাদের বার্ধক্য কালীন ভরসা হয়ে থাকে বিভিন্ন প্রকার ফিক্সড ডিপোজিট, রেকারিং ডিপোজিট ইত্যাদি। তবে বর্তমানে সমস্ত কিছুর ওপরই উল্লেখযোগ্য হারে সুদের হার কমানোয় চরম সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন দেশের প্রবীন নাগরিকবৃন্দ।

এইসময় বিভিন্ন পেনশন যোজনায় বিনিয়োগ করা আপনার জন্য বিশেষ লাভজনক হতে পারে। এই প্রতিবেদনে আপনাদের জানাব বেশ কিছু পেনশন যোজনা সম্পর্কে যেখানে আপনি বিনিয়োগ করে আপনার বার্ধক্য দিন সুনিশ্চিতভাবে আর্থিক চিন্তামুক্ত করতে পারবেন।

১. বীমা পেনশন পরিকল্পনা: এই নির্দিষ্ট পরিকল্পনা বিভিন্ন বয়সের প্রবীন‌ নাগরিকের জন্য বিশেষ লাভজনক প্ল্যান হতে পারে। এখানে শুধু পেনশনই নয়, বেশ কিছু কোম্পানি এই পেনশনের পাশাপাশি লাইফ ইনস্যুরেন্স ও প্রদান করে থাকে।

২. পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড: এই বিনিয়োগ একদম করমুক্ত। ফলে বেশ লাভবান হওয়ার সুযোগ রয়েছে বিনিয়োগ কারির। এখানে বার্ষিক সর্বোচ্চ ১.৫ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করা যায় একদম করমুক্ত ভাবে। 15 বছরের মেয়াদের মধ্যে যাতে লক-ইন পিরিয়ড রয়েছে পাঁচ বছরের ব্লক দ্বারা অনির্দিষ্টকালের জন্য তা বাড়ানো যেতে পারে এবং এই ফান্ড থেকে সুদের হার পাওয়া যায় ৭.১ শতাংশ।

৩. অটল পেনশন যোজনা: এই যোজনা ২০১৫ সালে কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক কার্যকর হয়েছে। এই স্কিম মূলত দেশের অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের জন্য। অর্থাৎ যারা আর্থিক দিক থেকে যথেষ্ট পিছিয়ে রয়েছেন তাদের জন্য। এই স্কিমে আপনি বিনিয়োগ করলে তা করতে পারবেন ১৮ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে এবং ৬০ বছর পর আপনি প্রতি মাসে ১০০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত পেনশন পাবেন।

৪. ন্যাশনাল পেনশন স্কিম: এই স্কিমে বিনিয়োগ করা একপ্রকার করবান্ধব বিনিয়োগ বলা যেতে পারে। এই প্রকল্পের আওতায় আসার জন্য আপনাকে ১৮ থেকে ৭০ বছর বয়সের মধ্যে হতে হবে এবং একজন ব্যক্তি এই প্রকল্পে ৭৭ বছর বয়স পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে পারবেন। এই প্রকল্পের আওতায় অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিক যেমন আসতে পারবেন তেমনি এই সুবিধা নিতে পারবেন চাকুরিজীবীরাও। এখানে ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত কর ছাড়‌ পাওয়া সম্ভব।

৫. প্রধানমন্ত্রী ভায়া বন্দনা যোজনা: দেশের প্রবীন নাগরিকদের কথা মাথায় রেখেই এই স্কিম নিয়ে এসেছেন কেন্দ্রীয় সরকার। যেখানে বিনিয়োগ করলে একজন ব্যক্তি ৬০ বছর বয়সের পর প্রতি মাসে নির্দিষ্ট টাকা পেনশন পাবেন। বর্তমানে এই প্রকল্পের সুদের হার রয়েছে ৭.৪ শতাংশ এবং এখানে আপনাকে বিনিয়োগ করতে হবে ১০ বছরের জন্য।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button