দূরপাল্লার ট্রেনগুলিতে আসতে চলেছে বদল! যাত্রীদের সুবিধার্থে এই সিদ্ধান্ত নিলো রেল! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- অন্যান্য যেকোনো সময় ট্রেনের পরিষেবা অত্যন্ত রোমাঞ্চকর হলেও গ্রীষ্মকালের কিন্তু ব্যাপার-স্যাপার সম্পূর্ণ আলাদা। বিশেষ করে লোকাল ট্রেনে ক্ষেত্রে তো বলার কোনো ভাষা নেই। একে প্যাচ প্যাচে গরম তারপর আবার অত্যধিক পরিমাণে ভিড় যাত্রাকে দুর্বিষহ করে তোলে। পাশাপাশি দূরপাল্লার ট্রেন গুলিতেও কিন্তু চিত্র এক। সেখানে সংরক্ষিত আসন থাকলেও প্রচণ্ড গরমে নাজেহাল অবস্থায় পড়তে হয় সাধারণ যাত্রীদের।

এবার তাদের কথা চিন্তা ভাবনা করে ভারতীয় রেলের তরফ থেকে এমন একটি নতুন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হল যেটা শোনা মাত্রই আপনি খুশি থাকবেন এবং এই সিদ্ধান্ত আগামী দিনে প্রচুর পরিমাণে কাজে দেবে সে ব্যাপারে নিশ্চিত ভারতীয় রেল। যাত্রীদের স্বাচ্ছন্দ্যের কথা ভেবেই এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে ভারতীয় রেল। যদিও এখনো পর্যন্ত সরকারিভাবে তেমন কোন বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়নি।

তবে সূত্র মারফত এমনটা জানা যাচ্ছে যে এবার থেকে দূরপাল্লার ট্রেন গু-লিতে প্রতিটি কামড়াতে এসি লাগানো থাকবে এবং এর জন্য যাত্রীদেরকে অতিরিক্ত ভাড়া গুনতে হবে না ।পূর্বের ভাড়া থেকে সামান্য কিছু বাড়ানো হলেও হতে পারে বলে অনুমান তাদের। তবে এতে যে সাধারণ মানুষেরা উপকার পাবে অনেকখানি সেটা নিশ্চিতভাবে বলা যেতেই পারে। সূত্রের খবর, নতুন এসি কামরাগুলি সম্পূর্ণ সংরক্ষিত হবে এবং এক একটি কামরায় ১০০ থেকে ২০০ জন যাত্রীর বসার ব্য়বস্থা করা হবে।

এরফলে যাত্রীদের অতিরিক্ত খরচও বহন করতে হবে না। রেল কর্তৃপক্ষের তরফে ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে পরিকল্পনা শুরু করে দেওয়া হয়েছে। পঞ্জাবের কপুরথালায় এই নতুন এসি কামরাগুলি তৈরি করা হবে বলে জানা গিয়েছে। কামরাগুলিতে স্বয়ংক্রিয় দরজা -ও থাকবে বলে জানা গিয়েছে।সম্প্রতিই ভারতীয় রেলের তরফে বাতানুকুল ইকোনমি কামরাও আনা হয়েছে, যার ভাড়া এসি-৩ টায়ারের তুলনায় অনেকটাই কম।

স্লিপার ক্লাসে যে সমস্ত যাত্রীরা যাতায়াত করেন, তাদের জন্য এই ব্যবস্থা করা হয়েছিল।বাকি যে সমস্ত কামরাগুলো থাকবে সেগুলো অসংরক্ষিত থাকবে যদিও ম-হামা-রী সময় থেকে সংরক্ষিত কামরা সংখ্যা বাড়ানো হয়েছিল কিন্তু পুনরায় সেগুলিকে আবার পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে ভারতীয় রেল।

সম্প্রতি রেল মন্ত্রকের তরফে রেল পরিষেবা স্বাভাবিক করার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। উল্লেখ্য, করোনাকালে যে ১৭০০-রও বেশি ট্রেন চলাচল স্থগিত রাখা হয়েছিল, তা আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই চালু করা হবে বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি এও জানানো হয়েছে যে, আগের সময়সীমা ও ভাড়াতেই চলবে এই ট্রেনগুলি। রেলমন্ত্রক সূত্রে আরও জানানো হয়েছে, বর্তমানে ৯৫ শতাংশ দূরপাল্লার অর্থাৎ এক্সপ্রেস ট্রেনই চালু হয়ে গিয়েছে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button