অসুস্থ হয়ে পড়ায় মা শুভশ্রীর দেখভাল করছে ছোট্ট ইউভান! সোশ্যাল মিডিয়ায় দারুন ভাইরাল হলো ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন:নিজের মা এর দায়িত্ব নিলো ছোট্ট ছেলে । কিছুদিন আগেই মা হওয়ার সুখ অর্জন করেছেন শুভশ্রী। তারপর থেকেই অভিনয় জগৎ থেকে এক প্রকার দূরে সরে গিয়েছেন নায়িকা। প্রথমবার চ্যালেঞ্জ ছবিতে অভিনয় করে চলচ্চিত্র জগতে পদার্পণ করেছিলেন শুভশ্রী। এরপর আর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।প্রথম জীবনে অভিনেতা দেবের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল নায়িকার।

কিন্তু পরবর্তী সময়ে মনোমালিন্যের জের তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে যায়। এরপর ২০১৫ সালে অভিমান চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে অংশ গ্রহণ করেন শুভশ্রী। সেই সময় পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর সঙ্গে তার আলাপ হয়।এর পরেই তাদের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরি হয় যা বিয়ে পর্যন্ত পৌঁছে যায়। ২০১৮ সালে একে অপরের সাথে গাঁটছড়া বাঁধেন রাজ—শুভশ্রী। গতবছর লকডাউন চলাকালীন সময়ে তাদের একটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়, যার নাম রাখা হয় ইউভান।

নানান ধরনের কর্ম ব্যস্ততার মধ্য দিয়ে তার দিন পেরিয়ে গেলেও অধিকাংশ ব্যস্ততা কিন্তু তার ছেলেকে ঘিরেই থাকে সর্বদা। যেহেতু এখন সে অত্যন্ত ছোট তাই তার দেখভালে কোনো রকম কোনো খামতি রাখতে চায়না অভিনেত্রী শুভশ্রী। কিছুদিন আগে শুভশ্রীর জন্মদিন জাঁকজমকপূর্ণভাবে উদযাপন করা হয়েছিল ।

যেহেতু তিনি এই মুহূর্তে পায়ে চোট পেয়েছেন তাই বাইরে কোথাও তেমন ভাবে আয়োজন করা হয়নি তার জন্মদিনের পার্টি ।সেই ঘরোয়া পার্টিতে শুভশ্রী গাঙ্গুলী কে দেখা গেল তার নিজের ছেলেকে কোলে নিয়ে কেক কাটতে ।পাশে উপস্থিত ছিলেন রাজ চক্রবর্তী।

তবে সম্প্রতি রাজ চক্রবর্তী আরো একটি ছবি তার ইনস্টাগ্রামের শেয়ার করে নিয়েছেন। সেখানে দেখা যাচ্ছে একটি সোফা এর মধ্যে শুয়ে রয়েছেন শুভশ্রী গাঙ্গুলী ।ডান পায়ে চোট লেগেছে তার ।পায়ের হেয়ার লাইন ফ্র্যাকচার ধরা পড়েছে ।জিম করতে গিয়ে এই ধরনের দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যাচ্ছে ।কিন্তু নিজের মায়ের অসুস্থতার কারণে মাকে দেখভালের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছে ছোট বাচ্চা ।শুভশ্রী পাশে বসে রয়েছে তার ছেলে। সেই ছবি ক্যামেরাবন্দি করে রাজ চক্রবর্তী শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়াতে এবং ক্যাপশনে লিখেছেন মামাস বয় ।ইতিমধ্যে তুমুল ভাইরাল হয়েছে ছবিটি নেট মাধ্যমে। পাশাপাশি কিছুদিন আগেই মুক্তি পেয়েছে শুভশ্রী গাঙ্গুলী নতুন ছবির ড বক্সি এর মোশন পোস্টার

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button