বাড়িতেই যে দারুণ সহজ পদ্ধতিতে ফুচকা বানালে হবে একদম দোকানের মতো ফুলকো ফুচকা, রইলো পদ্ধতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন:পুষ্টিকর না হলেও ফুচকা আমাদের সকলেরই একটি অতি প্রিয় খাদ্য। সাধারণত বিভিন্ন বাজারের স্টলে আমরা এই খাবারটি খেয়ে থাকি। কিন্তু আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন এর মাধ্যমে আমরা খুব সহজ পদ্ধতিতে বাড়িতেই অল্প খরচে খুব বেশি সময় ব্যয় না করে ফুচকা তৈরীর পদ্ধতি আলোচনা করবো। তাহলে আসুন আর দেরি না করে আমাদের এই বিস্তারিত প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

ফুচকা তৈরি করার জন্য প্রথম ধাপে ধনেপাতা এবং পুদিনাপাতা নিয়ে নিতে হবে।এরপর শিলনোড়া বা মিক্সিং গ্রাইন্ডার এর সাহায্যে এই পাতাগুলিকে ভালো করে বেটে নিন। বাটা হয়ে গেলে এটিকে আলাদা পাত্রে তুলে রেখে তেতুল ফেটিয়ে নিন। তেতুলের জলটি আলাদা হয়ে গেলে এর মধ্যে নুন, ধনে গুঁড়ো, সামান্য পরিমাণ চিনি, পুদিনা এবং ধনেপাতা বাটা দিয়ে দিতে হবে। ব্যস তৈরি হয়ে গেল তেঁতুলের চাটনি।

এরপর দ্বিতীয় ধাপে একটি গোটা বড় সাইজের আলু ভালো করে ধুয়ে সেদ্ধ করে খোসা ছাড়িয়ে নিন। এরপর এটিকে ভাল করে মেখে নিতে হবে।এরপর এর মধ্যে শসা কুচি, ধনেপাতা কুচি, পেঁয়াজ কুচি, গাজর কুচি, নুন, সামান্য মসলা, অর্ধেক লেবুর রস, মটরশুটি দিয়ে দিতে হবে।এরপর এটির মধ্যে আগে থেকে তৈরি করে রাখা তেঁতুলের চাটনি থেকে সামান্য পরিমাণ মিশিয়ে ফুচকার মসলা তৈরি করে নিতে হবে।

তৃতীয় ধাপে আমরা তৈরি করবো ফুচকা। এর জন্য ময়দা মেখে লেচি কেটে ভালো করে অনেকটা রুটির মতো গোল করে নিতে হবে। এরপর সেগুলি দিয়ে ফুচকা তৈরি হওয়ার পর তা সামান্য বিট নুন এর মধ্যে কড়াইতে শুকনো অবস্থায় ভেজে নিন।দেখবেন মাত্র কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই এটি একেবারে গোল গোল ফুলকো ফুচকায় পরিণত হয়ে গিয়েছে। এরপর মসলা এবং তেঁতুলের চাটনির সাহায্যে পরিবেশন করতে পারেন। আমাদের এই বিশেষ রেসিপিটি আপনার কেমন লাগলো তা জানাতে অবশ্যই ভুলবেন না। এবং হাতে কিছুটা সময় থাকলে অবশ্যই এই ফুচকার রেসিপিটি বাড়িতে বানানোর চেষ্টা করার অনুরোধ রইলো।

আরও পড়ুন

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button