দারুণ কায়দায় বাড়িতে এই পদ্ধতিতে পটলের এই রেসিপি রান্না করলে তার স্বাদই হয় দুর্দান্ত, খেতে হয় দারুণ টেস্টি, রইল পদ্ধতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন:গ্রীষ্মকালের একটি অন্যতম সুস্বাদু সবজি পটল।এই সবজিটি কে আমরা নানান রকম ভাবে রান্না করে খেয়ে থাকি। এটি শুধুমাত্র খেতেই সুস্বাদু নয় অত্যন্ত পুষ্টিকর মানুষের পক্ষে।আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এমন একটি পটলের রেসিপি আলোচনা করবো যা একবার খাবার পর বারবার খেতে ইচ্ছে হবে।

তাহলে আসুন আর দেরি না করে শুরু করা যাক।এই রেসিপিটি প্রস্তুত করার জন্য প্রথমেই বেশ কয়েকটি পটল নেওয়ার পর তা মাঝ বরাবর চিড়ে নিতে হবে। এরপর এরমধ্যে নুন এবং হলুদ মাখিয়ে ভালো করে রেখে দিন। কড়াইতে রান্নার তেল গরম করে এরমধ্যে জিরে, পেঁয়াজ কুচি এবং কয়েকটি কাঁচা লঙ্কা কুচি দিয়ে ভাল করে ভেজে নিতে হবে।

এই মিশ্রণটি ভাল করে ভাজা হয়ে গেলে পরিমাণমতো লবণ এবং লঙ্কার গুঁড়ো দিয়ে দিতে হবে। এরপর ভালো করে এর মধ্যে সেদ্ধ আলু দিয়ে মসলা কষিয়ে নিতে হবে। আলু সেদ্ধ গুলো মসলার সাথে ভালোভাবে মিশে গেলে এর উপর কয়েকটি ধনেপাতা ছড়িয়ে দিতে হবে। এরপর মিশ্রনটিকে ঠান্ডা হতে দিয়ে দিন।আলাদা একটি পাত্রের মধ্যে কিছুটা পরিমাণ বেসন এবং নুন নিয়ে ভালো করে একটি ঘন ব্যাটার তৈরি করুন। খেয়াল রাখবেন ব্যাটার যেন খুব বেশি ঘন বা পাতলা না হয়।

এরপর পটলের মধ্যে আলুর পুর গুলিকে ভরে এই ব্যাটারে ডুবিয়ে সাদা তেল গরম করে ভেজে নিন। যতক্ষণ পর্যন্ত না পটলের দুইপাশ ভাজা হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। সমানভাবে দুইদিক ভাজা হয়ে গেলে দেখবেন এটি অনেকটা চপের মতো দেখতে তৈরি হয়ে গিয়েছে।

এভাবে পটল রান্না করলে খেতে হবে দুর্দান্ত এবং একেবারেই ঘরোয়া পদ্ধতিতে তৈরি। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই আপনি এই রেসিপিটি তৈরি করে নিতে পারবেন। জলখাবার এবং বিকেলের টিফিন থেকে শুরু করে রাতের খাবারে ও এই রেসিপিটি কে আপনারা রাখতে পারেন। ভাত বা রুটি উভয়ের সাহায্যেই এটিকে খাওয়া যাবে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button