গুমোট গরম থেকে বড় স্বস্তি, পাঁচ জেলায় ব-জ্রবি-দ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা, জানালো আবহাওয়া দপ্তর!

নিজস্ব প্রতিবেদন:গ্রীষ্মকাল পড়ার সাথে সাথেই প্রত্যেক জায়গায় তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করে দিয়েছে। বিশেষত দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে তাপমাত্রার পারদ ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী। যার ফলস্বরূপ বেশিরভাগ দিন দুপুর হলেই তাপপ্রবাহের দেখা মিলছে। তবে এবারে গুমোট গরমের হাত থেকে রেহাই পেতে স্বস্তির কথা জানাল আবহাওয়া দপ্তর। প্রসঙ্গত ইতিমধ্যেই ভারতের দক্ষিণ অংশে তাউটে ঘূর্ণিঝড় এবং তু-মু-ল বৃষ্টিপাতের ফলে অনেকটাই পরিবেশ ঠান্ডা হয়ে গিয়েছে। এবার থেকে একই ঘটনা ঘটতে চলেছে বাংলার ক্ষেত্রেও।

বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরেই বাংলার বিভিন্ন জায়গায় নিম্নচাপের কারণে বৃষ্টিপাত লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এমতাবস্থায় সোমবার থেকেই যশ ঘূর্ণিঝড়ের আগমনের ফলে তুমুল পরিমাণে বৃষ্টিপাত শুরু হয়ে গিয়েছে। এখনো পর্যন্ত এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব শেষ হয়ে যায়নি। যার ফলস্বরূপ বাংলা এবং ওড়িশা উপকূলবর্তী অঞ্চল গুলির জন্য ভাবনা রয়ে গিয়েছে। এরই মধ্যে আবারও আগামী 24 ঘন্টার মধ্যে বাংলার পাঁচ জেলায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা জারি করলো আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।

হাওয়া অফিসের জারি করা এই নতুন তথ্য অনুযায়ী, আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে উত্তরবঙ্গের একাধিক জেলা যেমন-দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, দুই দিনাজপুর, মালদায় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। পাশাপাশি আলিপুর আবহাওয়া অফিস বলেছে, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, বীরভূম, পশ্চিম বর্ধমান, মুর্শিদাবাদে বৃষ্টির সাথে ঘণ্টায় ৭০—৯০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

প্রসঙ্গত আমফানের মত পরিস্থিতি তৈরি না হলেও, কলকাতায় ঘণ্টায় ৭০-৭৫ কিমি বেগে ঝোড় হাওয়ার সঙ্গে হালকা থেকে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।আজ বুধবার কলকাতা শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button