“আমাকে কিছু খেতে দাও আমার খিদে পেয়েছে”,- দারুন কায়দায় একদম মানুষের মতন ভঙ্গিমায় খাঁচা থেকে বলছে শালিক, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা বাড়িতে কুকুর বা অন্য কোন পশু পুষে রাখেন । গ্রামাঞ্চলে গেলে আপনি ভালো মতন ভাবে লক্ষ্য করবেন যে প্রতিটি বাড়িতে কিন্তু গরু পালন করার একটা রীতি নীতি দীর্ঘ যুগ ধরে চলে আসছে । কিন্তু অনেকে আবার এই সমস্ত কিছুকে বাদ দিয়ে বাড়িতে পুষে রাখেন পাখি । পাখির নেশা অনেকের আছে । কিন্তু তারা এমনটা জানে না বা বোঝেনা যে পাখি শুধুমাত্র মুক্ত আকাশে দেখতে ভালো লাগে । বদ্ধ খাঁচাতে নয় । তাই পাখিদেরকে ব-ন্দি করে রাখা মোটেও বর্তমান সভ্য সমাজের থেকে কাম্য নয় ।

আমরা এর আগে বিভিন্ন ধরনের পাখিদের অ-বাক করার মতন কা-ন্ড দেখেছি। যেমন শালিক পাখির কথা বলা বা টিয়া পাখি বাড়ির মালিকের সাথে একসাথে বসে ভাত খাওয়া । ঠিক এরকম অনেক ধরনের ঘটনা দেখেছি । এবং সেই সমস্ত ঘটনাবলি কোথাও যেন আমাদের মনের অবসাদ কে দূর করতে সাহায্য করে ।কারণ প্রতিদিনের এ-কঘে-য়েমি জীবনে আমরা বি-রক্ত হয়ে উঠি ।সেই একঘেয়ামি বা অ-বসাদ কা-টিয়ে তুলতে আমরা মু-খ গুঁ-জে মিডিয়ার তে । সোশ্যাল মিডিয়া কিন্তু আমাদেরকে নিরাশ করে না । এই ঘটনা তার প্রমাণ ।

সম্প্রতি ইউটিউবে একটি ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে যেখানে দেখানো হয়েছে এটি গ্রামের দৃশ্য এবং সেখানে একটি বাড়ি একটি খাঁ-চার মধ্যে ব-ন্দী রয়েছে একটি শালিক পাখি । আমরা জানি যে ভারতবর্ষে এবং বাংলাদেশের শালিক পাখি টিয়া পাখির জনপ্রিয়তা অনেক বেশি । তার পাশাপাশি প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে এদের চাহিদা । কিন্তু এমনটা মনে করা হয় যে পাখিকে কখনো খাঁ-চার মধ্যে ব-ন্দী করে রাখা উচিত নয় । কারণ কথাটি আছে ‘বন্যরা বনে সুন্দর শিশুরা মাতৃকোলে’ অর্থাৎ পাখির জায়গা ঘুরে বেড়ানো সেখানে তাদেরকে ছেড়ে দেয়া উচিত।

সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে খাঁচায় বন্দী থাকা সে শালিক পাখি টি অবিকল মানুষের মতন কথা বলছে । যিনি ভিডিও করছেন তিনি যদি কোন শব্দ করছেন তাহলে সেই শব্দকে অবিকল অনুকরণ করে শালিক পাখি কথা বলার চেষ্টা করছে । অ-বাক করার মতো সেই রো-মাঞ্চকর মুহূর্তটি ভাইরাল হয়েছে নেট মাধ্যমে ব্যা-পক পরিমাণে। এসেছে প্রচুর মন্তব্য । তার পাশাপাশি এই ধরনের দৃশ্য দেখতে পেয়ে অনেকে আপ্লুত । সেটা আপনারা কমেন্ট বক্স দেখলেই বুঝতে পারবেন ।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button