আশেপাশের সমস্ত ঘরবাড়ি পদ্মার গর্ভে চলে গেলেও আজও রহস্যজনক ভাবে দাঁড়িয়ে আছে গাজী কালুর বাড়ি! দেখুন ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-আমাদের চারিপাশে কখনো কখনো এমন কিছু রহস্যজনক ঘটনা দেখা যায় যেগুলো রহস্য উদঘাটন করতে এখন অব্দি সক্ষম হয়নি কোন মানুষজন ঈশ্বরের আশ্চর্য দান হিসেবে সেই সমস্ত বিষয়গুলিকে গণ্য করা হয়ে থাকে ঠিক তেমনি পদ্মা নদীর মাঝি দাঁড়িয়ে রয়েছে প্রায় 10 কোটি টাকার মূল্যের তিন তালা গাজী কালুর বাড়ি যা তৈরি হয়েছিল ১৯৯৮ সালে।এই সমস্ত ঘটনা প্রতিনিয়ত অবাক করছে সাধারণ মানুষকে তার পাশাপাশি অবাক করছে নেট দুনিয়া প্রতিটি জনতাদের কে।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা দেখেছিলাম যে নদীর তীরবর্তী অঞ্চলে গড়ে ওঠা আবাসন গুলি কিভাবে দুমড়ে-মুচড়ে পরে যখন নদীতে কোন বান বা জলোচ্ছ্বাস দেখা যায় । উপকূলবর্তী অঞ্চলের মাটি উর্বর হয়ে যায় । যার ফলে এই ধ্বংস হয়ে যাওয়ার ঘটনা দেখতে পাওয়া যায় । এই ঘটনা বাংলাদেশের পদ্মা নদীর ধারে অবস্থিত অনেকগুলি আবাসনের ক্ষেত্রে দেখা গেছে । কিন্তু সম্প্রতি যে ভিডিওটি ঘটনাটি প্রকাশ উঠে এসেছে সেটি রীতিমত অবাক করে তুলেছে।

সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ্যে উঠে এসেছে সেখানে দেখা যাচ্ছে যেখানে পদ্মার প্লাবনে তলিয়ে গেছে বাজার হাট ঘরবাড়ি রাস্তা ব্রিজ সেখানে পদ্মার একদমই গা ঘেঁষে দাঁড়িয়ে রয়েছে তিন তালা এই বাড়িটি । বাড়িটি এতটাই কাছে অবস্থিত যে পদ্মার জল ছুঁয়ে যায় তার ভীত কে ।

কিন্তু কিভাবে এত দুর্বল মাটির উপর এত বড় বাড়ি দাঁড়িয়ে রয়েছে বছরের পর বছর ধরে তা ভেবে কূলকিনারা পাচ্ছি না অনেকে । সেই বাড়ির ভিতরে ছোট্ট একটি মসজিদ । অনেকে আবার এটাকে ঈশ্বরের কৃপা বা দান হিসেবে মনে করেন । তবুও এমনটা বলা যেতেই পারে যদি পরবর্তী ক্ষেত্রে কোনো কারণে অতিরিক্ত জলোচ্ছ্বাস দেখা যায় বা আসে তাহলে কিন্তু সেই বাড়িটি ভেঙে জলের তলায় তলিয়ে যেতে পারে । তাই আগে থেকে সাবধানতা নেওয়া দরকার।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button