“নিখিল চ্যাপ্টার আপাতত এবার আপনারা ক্লোজ করুন প্লিজ, ও আমার বর না, শুধু স-হ-বা-স করেছি”- বললেন অভিনেত্রী নুসরত জাহান!

নিজস্ব প্রতিবেদন:বাংলা চলচ্চিত্র জগতের জনপ্রিয় নায়িকাদের মধ্যে অন্যতম নুসরাত জাহান। অভিনয় ক্ষেত্রে বরাবর তিনি সাফল্য লাভ করলেও ব্যক্তিগত জীবনে তিনি নিজের বিবাহ ধরে রাখতে অসফল হয়েছেন। ফলস্বরূপ কিছুদিন ধরেই সংবাদ শিরোনামে রয়েছেন অভিনেত্রী। অভিনেত্রী ছাড়াও তার আরেকটি পরিচয় রয়েছে; রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ তিনি।

বিগত প্রায় বেশ কিছু সময় ধরে এই দলের সাথে যুক্ত রয়েছেন নুসরত।সম্প্রতি চলতি বছরের বিধানসভা নির্বাচন শুরু হওয়ার আগে হঠাৎ করেই নুসরাতের সাথে ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী যশ দাশগুপ্তর সম্পর্কের কথা সামনে চলে এসেছিল। যদিও উভয়ই এই সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেছিলেন।

এই প্রসঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে যশ দাশগুপ্ত বলেন,”নুসরাতের সঙ্গে কেন আমার নাম জড়ানো হচ্ছে তা বুঝতে পারছিনা। এটা নুসরাত এবং নিখিলের একান্তই ব্যক্তিগত ব্যাপার”। যদিও নুসরাত এবং নিখিল এই প্রসঙ্গে বিশেষভাবে কোনো মন্তব্য করেননি। এমতাবস্থায় আচমকাই গতকাল নিজের বিয়েকে আইনগতভাবে অবৈধ বলে ঘোষণা করেন নায়িকা।

উল্লেখ্য বছর তিনেক আগে 2019 সালে তুরস্কে বিয়ে সেরেছিলেন নুসরাত এবং নিখিল।সেই সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের বিয়ের নানান ছবি ভাইরাল হয়েছিল। ভিন্ন ধর্মের হওয়া সত্বেও নিখিল কে বিয়ে করে হিন্দু ধর্মের সমস্ত নিয়মাবলী পালন করেছিলেন অভিনেত্রী।যা নিয়ে বেশ বিতর্কের মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে।

প্রসঙ্গত দিন কয়েক আগে নিজের ইনস্টাগ্রামে এক পোষ্টের মাধ্যমে নুসরাত জানান,তাদের বিয়ে তুরস্কে হয়েছে এবং হিন্দু মুসলিম বিয়ের বিশেষ আইন অনুযায়ী তার রেজিস্ট্রেশন হয়নি। সুতরাং এটি কোনোভাবেই বৈধ বিবাহ নয়। নুসরাত আরও বলেন,’আমি নিখিলের সাথে লি-ভ-ইন সম্পর্কে ছিলাম। এখন এখান থেকে আমি বেরিয়ে আসতে চাই’।

অপরদিকে নুসরাতের স্বামী নিখিলের গলাতে রয়েছে একেবারেই উল্টো সুর। নিখিল জানিয়েছেন, বারংবার নুসরাতকে বিয়ে রেজিস্ট্রেশন করার কথা বললেও তিনি তা এড়িয়ে গিয়েছেন। নুসরাতের আনা সমস্ত অভিযোগ একেবারেই মিথ্যে।কিন্তু তবুও তিনি নুসরাতের বিরুদ্ধে কোনো কথা বলতে চান না’।এই পরিস্থিতিতে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে তবে কি সত্যি প-র-কী-য়া সম্পর্কের জেরে ভা-ঙ-ন ধরল এই তারকা দম্পতির সম্পর্কে! নাকি এর প্রেক্ষাপটে রয়েছে অন্য কোনো বিশেষ কারণ।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button