এক ঝলকে জেনে নিন অল্প পুঁজিতে শুরু করতে পারবেন এমন ৮টি লাভজনক পাইকারি ব্যবসা সম্পর্কে! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-সুষ্ঠু ভাবে চলতে থাকা ভারতের এই পরিবেশকে সম্পূর্ণ রকম ভাবে ভেঙ্গে চুরে দিয়েছে এই মহামারী ।এমতাবস্থায় দাঁড়িয়ে বাজারে চাকরি নেই। টাকা পয়সার অভাব প্রায় প্রতিটি পরিবারে ।তার পাশাপাশি শিক্ষিত হয়েও বেকার থাকতে হচ্ছে রাজ্য তথা দেশের যুবক যুবতীদের জন্য।

অনেকে আবার বিকল্প পথ হিসেবে ব্যবসাকে বেছে নিয়েছে কিন্তু কোন ব্যবসা করলে কম খরচে লাভের পরিমাণ বেশি রাখা যাবে সে ব্যাপারে অনেকেই হয়তো ইতিমধ্যে চিন্তাভাবনা করা শুরু করে দিয়েছেন ।তাদের জন্য আজকের এই প্রতিবেদনটি ।কারণ আজকের প্রতিবেদনের মাধ্যমে আপনি এমনকি বেশ কিছু ইউনিক ব্যবসার কথা জানতে পারবেন যেগুলি শুরু করতে গেলে খুব কম টাকা বিনিয়োগ করতে হয়।

কাপড়ের পাইকারি ব্যবসা :-আমাদের বাংলার কাপড় জগদ্বিখ্যাত । যার ফলে বাজারে প্রতিনিয়ত এর চাহিদা প্রায় একইরকম থেকে থাকে । আপনি থান কাপড়ের ব্যবসা বা শাড়ির ব্যবসা শুরু করতে পারেন । এর জন্য আপনাকে আট থেকে দশ লক্ষ টাকা পুজি নিয়ে বাজারে নামতে হবে সেই পাইকারি দরে কাপড় কিনে গুদামে মজুদ করে রেখে খুচরা ব্যবসায়ীদের মধ্যে বন্টন করে দেওয়ার মধ্যে প্রচুর পরিমাণে থাকে ।

চালের ব্যবসা :-আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যারা পাইকারি দরে চালের ব্যবসা শুরু করে দিয়েছেন ইতিমধ্যে । আবার অনেকে কোরবো ভাবছেন । যারা এখনো বিয়ে করেননি তাদেরকে বলব চালের ব্যবসা অত্যন্ত লাভজনক একটি ব্যাবসা । বিভিন্ন রাইস মিল থেকে চাল কিনে সেগুলি খুচরা বিক্রেতাদের কাছে আপনি বিক্রি করতে পারেন প্রচুর পরিমাণে লাভ থাকে এতে ।

এর পাশাপাশি এই ব্যবসা শুরু করার ক্ষেত্রে আপনাকে যে দুটি জিনিস মাথায় রাখতে হবে সেটি হল এর পরিবহন খরচ এবং চাল সম্পর্কে বাজারজাত জ্ঞান ।মুদি সামগ্রীর পাইকারি ব্যবসা: এটি একটি লাভজনক পাইকারি ব্যবসার আইডিয়া। মুদির দোকানে নিয়মিত বিক্রি আছে আর তাই তারা নিয়মিত মাল নেবে।

তেল, মশলা, ডাল ইত্যাদি নানা পণ্যের ব্যবসা করতে পারেন। কোম্পানির ডিস্ট্রিবিউটরের থেকে পাইকারি হারে জিনিস সংগ্রহ করে পৌঁছে দিন খুচরো ব্যবসায়ীর কাছে। কোন কোম্পানির কোন পণ্যের কীরকম চাহিদা সে বিষয় জেনে নিন। নতুন পণ্য সম্পর্কে খোঁজ রাখুন।

ব্যাগের পাইকারি ব্যবসা:এই পাইকারি ব্যবসার আইডিয়াটি লাভজনক কিন্তু এতে প্রয়োজন বেশি পরিমাণ পুঁজি । তবে একবার ব্যবসা চালু হয়ে গেলে লাভ ভাল হবে। নির্মাতাদের সঙ্গে যোগযোগ করে জেনে নিন পাইকারি মূল্য। কোন এলাকার কোন দোকানে সেই ব্যাগ দিলে লাভ হবে তা হিসেব করে নিন। ব্যাগের মানের দিকে নজর দিন, তাহলেই তা বাজারে চলবে।

টি-শার্ট এর ব্যবসা :-বর্তমান প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের টি শার্টের উপর প্রবণতা বেড়ে গেছে অনেকখানি । পাশাপাশি সেই টি-শার্ট যদি গ্রাফিক্স ডিজাইনে হয়ে থাকে তাহলে তার চাহিদা আরো অনেক বেশি তাই টি-শার্ট প্রিন্টিং টি শার্ট এর পাইকারি ব্যবসা শুরু করতে পারেন ।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button