ফের জল ছাড়ল DVC! হু হু করে বাড়ছে গঙ্গার জলের স্তর! চরম আতঙ্কে সাধারণ মানুষ! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন:আর দিন কয়েকের মধ্যেই বাঙালির সবথেকে বড় উৎসব দুর্গাপূজা শুরু হতে চলেছে। সারা রাজ্য জুড়ে শুরু হয়ে গিয়েছে তার প্রস্তুতি। কিন্তু এরই মধ্যে রাজ্যজুড়ে দুর্যোগের আভাস লক্ষ্য করা গেল। সম্প্রতি বিগত কয়েকদিনের টানা নিম্নচাপ এর ফলে ইতিমধ্যেই সারা রাজ্য জুড়ে প্লাবনের অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। বেশিরভাগ জায়গাই কোমরসমান জলের তলায় ডুবে রয়েছে।যদিও ক্রমাগত এই বন্যা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছে প্রশাসন, তবে আবারও পুজোর আগেই বড় বিপদের কথা জানান দিল আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।

হাওয়া অফিস বলছে, খুব শীঘ্রই আবারো বাংলার বেশ কয়েকটি জায়গায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাত শুরু হতে পারে। এমনকি পুজোর কয়েক দিনও বৃষ্টির প্রভাব লক্ষ্য করা যাবে। বিশেষত দূর্গা পূজার নবমী এবং দশমীর দিন ভারী বৃষ্টির সর্তকতা জারি করেছে মৌসম ভবন। সুতরাং পুজোর আগেই আবারও বানভাসি হতে চলেছে বাংলার বেশ কয়েকটি এলাকা। কারণ এখনও পর্যন্ত পূর্ববর্তী পরিস্থিতি সম্পূর্ণরূপে স্বাভাবিক হয়নি। বিভিন্ন জায়গা থেকে জল নিষ্কাশন এর কাজ চলছে ক্রমাগত।এরমধ্যে স্বাভাবিকভাবেই আবার বৃষ্টি হলে পরিস্থিতি কঠিন হয়ে যাবে।

শুধুমাত্র বৃষ্টিপাত নয় জলাধার থেকে ছাড়া জলের ফলেও বাংলায় দুর্যোগ দেখা দিতে পারে।ইতিমধ্যেই মুকুটমণিপুর জলাধার থেকে প্রায় 35 হাজার কিউসেক জল ছাড়া হয়েছে। মাইথন— পাঞ্চেত জলাধার থেকে প্রায় এক লক্ষ কিউসেক জল ছাড়া হয়েছে। ক্রমাগত দুর্গাপুর ব্যারেজ থেকেও জল ছাড়ছে ডিভিসি। যার ফলস্বরুপ দুর্যোগের মুখোমুখি হতে চলেছে বাংলার বিস্তীর্ণ অংশ। এর মধ্যে রয়েছে হাওড়া, হুগলি, পূর্ব বর্ধমান সহ বেশ কিছু এলাকা।

ইতিমধ্যেই এই সব এলাকার অনেক জায়গা থেকে প্রায় দেড় লক্ষ মানুষকে ত্রাণ শিবিরে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিপর্যয় মোকাবিলা করার জন্য সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হচ্ছে। তবে এরপর আরও জল ছাড়া হলে বা নিম্নচাপ সৃষ্টি হলে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাবে তা নিঃসন্দেহে বলা যায়।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button