মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে বাংলায় এই পাঁচ জেলায় টানা তিন দিন হতে চলেছে ভারী বৃষ্টিপাত।আগাম সতর্কতা মৌসুম ভবনের!

নিজস্ব প্রতিবেদন:সম্প্রতি কিছুদিন আগেই ঘূর্ণিঝড় যশ বাংলা এবং ওড়িশা উপকূলে অত্যন্ত ক্ষয়ক্ষ-তি সৃষ্টি করে গিয়েছে। এমতাবস্থায় আবারও নতুন ঘূর্ণি-ঝ-ড়ের আগমনের কথা ঘোষণা করল আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।শুধুমাত্র ঘূ-র্ণি-ঝড় নয় নিম্নচাপের কথাও জানানো হয়েছে। যার ফলস্বরুপ আগামী ৪—৫ দিন রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সর্তকতা জারি করা হয়েছে।আসুন এক ঝলকে দেখে নেওয়া যাক রাজ্যের কোন কোন জেলায় এই নতুন ঘূ-র্ণিঝ-ড়ের প্রভাব সৃষ্টি হবে।

পূর্ববর্তী ঘূর্ণি ঝড়ের তা-ণ্ডব এর ফলে এখনো পর্যন্ত ল-ন্ডভ-ন্ড রয়েছে একাধিক অঞ্চল। এরই মধ্যে ঘূ-র্ণি-ঝড় গুলাবের আগমন ঘটতে চলেছে।গুলাব শব্দটির বাংলা তর্জমা করলে দাঁড়ায় গোলাপ। এই ঘূ-র্ণি-ঝ-ড়ের নামকরণ করেছে পাকিস্তান। আন্তর্জাতিক নিয়ম অনুযায়ী ঘূর্ণিঝড় যে অববাহিকায় তৈরি হয় তার কাছে থাকা দেশ ঝড়ের নামকরণ করে থাকে। এই ক্ষেত্রেও তার কোনো ব্যতিক্রম ঘটেনি।

জানানো হয়েছে বিশেষ ভাবে এই ঘূ-র্ণি-ঝড় কোনো প্রভাব বিস্তার না করলেও ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত সৃষ্টি করবে বাংলা সহ ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্যে। পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব এবং পশ্চিম বর্ধমান, কলকাতা, মেদিনীপুর, আলিপুরদুয়ার সহ একাধিক জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত প্রত্যক্ষ করা যাবে। যার ফলস্বরুপ তাপমাত্রাও অনেকটা নিম্নমুখী হবে বলে আশা প্রকাশ করছেন আবহাওয়াবিদেরা। এই সময়ে আগাম সর্তকতা হিসেবে মৎস্যজীবীদের সমুদ্রযাত্রা করতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি প্রয়োজন অনুযায়ী সরকারের তরফে অন্যান্য সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button