এমএ পাশ করেও চাকরি না পেয়ে ট্রেনে হকারি করেন প্রতিবন্ধী যুবক!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-বর্তমানে রাজ্যের এমন অবস্থা যেখানে প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে বেকারের সংখ্যা। উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হয়েও চাকরি জোটাতে পারছে না বহু ছেলেমেয়ে । এই অবস্থায় সংসার কিভাবে ধরবে তা ভেবে পাচ্ছেন না অনেকে। যার ফলে একাধিক অসামাজিক কাজকর্ম আত্মহত্যার মতো খবর সামনে উঠে আসছে প্রতিনিয়ত ।।এবং যত দিন যাচ্ছে ততই বেড়ে চলেছে সংখ্যা ।

আমরা ভোটের মাধ্যমে সরকারকে ক্ষমতায় নিয়ে আসি । কিন্তু যে সমস্ত প্রতিশ্রুতি গুলো দিয়েছে সরকার ক্ষমতায় আসে সেগুলি আর পূরণ হয় না কখনো । বছরের পর বছর পেরিয়ে যায় । সরকার কিন্তু রাখে না তার প্রতিশ্রুতি । যার ফলে বেকারত্বের সংখ্যা মেটে না এই ভারতবর্ষে । কখনো একটা সমীক্ষা বলছে ভারত বর্ষ বেকারত্বের দিক থেকে অনেক এগিয়ে।

ঠিক তেমনই এক মর্মান্তিক ঘটনার উদাহরণ আমরা তুলে ধরতে চলেছি প্রতিবেদনের মাধ্যমে । নাম শিবপ্রসাদ। বছর ২৬ এর এই যুবকের কোমরের নীচ থেকে অংশ সম্পূর্ণ রকম ভাবে নেই । বাবা চাকরি করে তাতে সংসারের খরচ মেটানো সম্ভব নয় । বোন এবার উচ্চমাধ্যমিক দেবে তার পড়াশোনার খরচ বাড়ছে। তাই নিজেকে কিছু একটা করতে হবে ।তাই সে ঠিক করে ট্রেনে হকারী করবে ।কিন্তু প্রতিবন্ধী হয়ে কিভাবে হকারি করবে সেটি তাকে বারবার ভাবিয়ে তুলছিলো ।

অবশেষে অভাব যখন দরজায় এসে দাঁড়ায় তখন আর কোন উপায় থাকে না । সে অবস্থাতেই এক হাতের ওপর ভর দিয়ে ট্রেনের মেঝেতে এপার-ওপার করে শিবপ্রসাদ । কাঁধে একটি কালো ব্যাগ এবং হাতে ধূপের প্যাকেট ।এবং প্রতিনিয়ত ধূপের সম্পর্কে বলতে থাকে ট্রেনে থাকা যাত্রীদেরকে ।

তবে আশ্চর্যের বিষয় হলো এই শিবপ্রসাদ অন্যান্য হকারদের তুলনায় আলাদা ।কারণ তিনি সংস্কৃত এম এ পাস । এত উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হয়েও কোনও সাহায্য হয়নি । মুখ্যমন্ত্রী কে চিঠি লিখেছিলেন অবশ্য তার বদলে মিলেছে একটি সাইকেল । প্রাক্তন পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী কেউ এ কথা জানিয়েছিলেন । কিন্তু কোনো ফল হয়নি অবশেষে তাকে পথ বেছে নিতে হয়েছে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button