বাড়ির ছাদে দুর্দান্ত সাজে ‘আমার ভিনদেশী তারা’ গানের অসাধারণ নাচলেন দীপান্বিতা কুন্ডু! ব্যাপক ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- “আমার রাত জাগা তারা তোমার অন্য পাড়ায় বাড়ি আমি পাইনা ছুঁতে তোমায় আমার একলা লাগে ভারী “-একদম ঠিক শুনেছেন এটি হচ্ছে ভিনদেশী তারা নামক জনপ্রিয় বাংলা গানের ছোট লাইন। যার মাধ্যমে বহু প্রেমিক-প্রেমিকাদের ব্যর্থ-প্রেমের-গল্প তুলে ধরেছে বছরের পর বছর ধরে। তবে এই ভাঙ্গা হৃদয়ের অনুভূতি কেউ সুন্দরভাবে নাচের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা যেতে পারে সেটা দীপান্বিতা কুন্ডুর নাচ না দেখলে হয়তো বিশ্বাস করা যেত না।

এবার নিশ্চয় আপনাদেরকে বলে দিতে হবে না যে দীপান্বিতা কুন্ডু আসলে কে? তবুও যে সমস্ত মানুষরা জানে না তাদের সুবিধার্থে সংক্ষিপ্ত হবে তার পরিচয় দেওয়া হল। বেশ কিছু বছর আগে জি বাংলায় অনুষ্ঠিত হতো নাচের অনুষ্ঠান ডান্স বাংলা ডান্স জুনিয়র। এই শো এর একজন প্রতিযোগী হলেন দীপান্বিতা কুন্ডু । যাকে মিঠুন চক্রবর্তী ভালোবেসে ডাকতেন পান্তা ভাতের কুন্ডু বলে । কিন্তু তারপর কোথাও যেন হারিয়ে যায় সেই ছোট্ট দীপান্বিতা।

কিন্তু সেই ছোট্ট দীপান্বিতা আবার ফিরে এসেছে রীতিমতো বড়োসড়ো এক শিল্পী হয়ে । শিশু শিল্পী বেড়ে উঠেছে এবং তার পাশাপাশি সকলকে অবাক করে দিয়েছেন তার নাচের মাধ্যমে। সোশ্যাল মিডিয়াতে বেশ সক্রিয় থাকে দীপান্বিতা কুন্ডু। তার পাশাপাশি বিভিন্ন সময়ে তার ইউটিউব চ্যানেল থেকে বিভিন্ন খাবার দাবারের ভিডিও কিন্তু শেয়ার করে থাকেন তিনি তার অনুরাগীদের সাথে।

এর আগে আমরা দীপান্বিতা কুন্ডুর অথবা পান্তা ভাতের কুন্ডু বিভিন্ন ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে দেখেছিলাম । সেই ভিডিওগুলি নিজের বাড়ির মধ্যেই ক্যামেরাবন্দি করেছেন তিনি । তবে বেশ কিছুদিন আগে সম্প্রতি একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল যেখানে বাড়ির বাইরে থাকে অসম্ভব সুন্দর কায়দায় নাচে দেখা গিয়েছিল ফেরার দীপান্বিতা কুন্ডু কে । দখল করেছিল খবরের শিরোনাম শুধুমাত্র তার নাচের মাধ্যমে।

আমার ভিনদেশী তারা গানের অসম্ভব সুন্দর কায়দায় নেচেছেন পান্তা ভাতের কুন্ডু। কালো পোশাকে তাকে দেখতেও লাগছে অসম্ভব সুন্দরী। প্রতিটি গানের লাইন সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তুলছে তার প্রতিটি ভাবনাচিন্তা গু-লিকে। এমতাবস্থায় সেই ভিডিওটি মুহূর্তের মধ্যে হয়েছে ভাইরাল এবং দখল করে নেয় নেটদুনিয়ায় জনটাদের নজর । ইতিমধ্যেই ভিডিও দেখে ফেলেছে প্রচুর মানুষ তার পাশাপাশি করে বসেছে অনেকেই ইতিবাচক মন্তব্য। এসেছে প্রচুর ভালোবাসা ও অভিনন্দন।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button