বিদ্যুতের দাম নিয়ে বড়োসড়ো সিদ্ধান্ত নেওয়ার পথে কেন্দ্র! কপালে চিন্তার ভাঁজ সাধারণ মানুষের! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :-আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই বিদ্যুৎ নিয়ে বড়োসড়ো পরিবর্তন ঘটতে চলেছে গোটা দেশ জুড়ে। বিদ্যুতের বিল বাড়তে চলেছে গোটা দেশজুড়ে ।যার ফলে মাথায় হাত পড়েছে সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষের। বিদ্যুতের বিল এর মূল্য বেড়ে যাওয়ার কারণে রীতিমতো চরম ভোগান্তির মুখোমুখি হবে কোটি কোটি গ্রাহকরা।

কিন্তু কেন হঠাৎ করে এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে হলো সরকারকে সে ব্যাপারে আপনার কি কোন তথ্য জানা আছে? যদি না জানা থাকে তাহলে জেনে নিন আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমেআমাদের দেশে যে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয় তার প্রধান উৎস বা কাঁচামাল হচ্ছে কয়লা। কিন্তু চাহিদার তুলনায় উৎপাদিত হচ্ছে না দেশে। এমনকি যদি কোনো কারণে কয়লা অতিরিক্ত মাত্রায় উৎপাদন করা হচ্ছে তাহলে সেটিকে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে বিদেশে।

যার ফলে দেশের মধ্যে চরম সংকট দেখা গেছে এই কয়লাকে নিয়ে ।এর ফলে আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হচ্ছে বিদ্যুৎ বণ্টনকারী সংস্থা গুলি এবং এর প্রভাব পড়বে সরাসরি মানুষের উপর ।যেহেতু এই বিদ্যুৎ বণ্টনকারী সংস্থা বা ডিসকম গুলি প্রতিনিয়ত আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে ।তাই এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে সরকার ।

এবার হয়তো আপনার মনে হতে পারে যে ডিসকম কি? এর কাজ হল বিদ্যুৎ বিতরণ করা এবং জনসাধারণের কাছ থেকে টাকা আদায় করা ।কিন্তু যদি কয়লা সংকটের কারণে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয় তারা কিন্তু অতিরিক্ত বোঝা বাড়বে এই সমস্ত কোম্পানি গুলির উপর।কয়লার এই সংকটের কারণে একাধিক বেসরকারি সংস্থা গুলি বন্ধ হয়ে গেছে ।

এমতাবস্থায় দাঁড়িয়ে অটোমেটিক থ্রু পাস মডেলে দেশ চালানো হতে পারে বলে অনুমান অনেককে ।ইতিমধ্যে এই মডেলে কাজ শুরু হয়ে গেছে একাধিক জায়গাতে। এখানে জানানো হয়েছে যে যদি কোনো কারণে বিদ্যুতের হার কে পরিবর্তন ঘটে তাহলে বছরে কয়েকবার বিদ্যুতের শুল্ক আপডেট করা যেতে পারে।তবে আপাতত এই মডেল টি সম্পূর্ণ রকম ভাবে স্বয়ংক্রিয় হবে না ।

কারণ এই মডেলটি প্রয়োগ করতে গেলে অতি অবশ্য রাজ্য সরকারের অনুমোদন দরকার ।9 নভেম্বর নতুন নির্দেশনা জারি করেছে এবং 11 নভেম্বর সেটি ওয়েবসাইটে লঞ্চ করার কথা জানানো হয়েছে মন্ত্রণালয় তরফ থেকে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button