তবে কি এবার পাল্টে যাবে পুরীর নাম ? এই নিয়ে তোলপাড় পুরীর রাজনৈতিক ও আধ্যাত্মিক মহল!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-ভ্রমণপিপাসু বাঙালি সবথেকে জনপ্রিয় একটি জায়গা হচ্ছে পুরি ।উড়িষ্যাতে অবস্থিত পুরীর মন্দিরে অনেকেই ঘুরতে যান আবার অনেকে জগন্নাথ দেবের দর্শন করতে যায়। প্রতিবছর প্রায় কয়েক লক্ষ মানুষের ঢল নামে পুরীতে। পাশাপাশি রথ যাত্রার সময় জগন্নাথ দেবের মন্দিরে যে পরিমাণ পরিলক্ষিত হয় তা থেকে এমনটা বলা যেতেই পারে যে বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান গুলোর মধ্যে পুরী অন্যতম একটি।কিন্তু এবার সেই পুরীর নাম বদলানো নিয়ে জোর আলোচনা চলছে রাজনৈতিক এবং আধ্যাত্মিক মহলে ।

শোনা যাচ্ছে বিভিন্ন সংগঠনের তরফ থেকে এমনটা দাবি তোলা হয়েছে অবিলম্বে পুরীর নাম পাল্টানো হোক ।শ্রী জগন্নাথ মন্দির ম্যানেজমেন্ট কমিটির বৈঠকেও বিষয়টি তোলা হয়েছিল।সেখানে 30 টি সংগঠন উপস্থিত ছিল ।যাদের অধিকাংশ সংগঠন এই নাম পাল্টানোর দাবিকে সমর্থন জানিয়েছে বেশ কিছুদিন আগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান পুরি গিয়েছিলেন তিনি ও পুরীর নাম পাল্টানো নিয়ে মত প্রকাশ করেছিলেন ।অনেক নামের প্রস্তাব দেওয়া হয়। যার মধ্যে সবচেয়ে বেশি দাবি জানানো হয় জগন্নাথ ধাম পুরী এবং জগন্নাথ পুরী নাম দু’টি।

এই বিষয়ে শ্রী শ্রীক্ষেত্র সূচনা’র সেক্রেটারি রাজেশ কুমার মোহান্তি জানান,বহু জায়গাতে পুরী জগন্নাথ দেবের ধাম কে উল্লেখ করা হয়। এমনকি পুরানো এই পুরী জগন্নাথ ধামের কথা উল্লেখ রয়েছে ।তাই পুরীর পরিবর্তে অতি অবশ্যই জগন্নাথ ধাম নামটি যুক্ত করার প্রয়োজনীয় বলে মনে করছেন তিনি।অনেকে আবার এর বিপক্ষে ও গিয়েছে। পুরীর গোবর্ধন মঠের শংকরাচার্য স্বামী নিশ্চলানন্দ সরস্বতী মতে এই নাম পাল্টানোর কোনো রকম কোনো যৌক্তিকতা নেই। সারা বিশ্বে পুরী মানেই জগন্নাথ দেবের ধাম।

তিনি জানান, দ্বারকা পুরী, মথুরা পুরী বা অযোধ্যা পুরীর মতো ধামের সঙ্গে পুরী শব্দটি এমনিতেই জড়িত। শুধুমাত্র জগন্নাথ দেবের ধামের ক্ষেত্রে শুধু পুরী শব্দটি ব্যবহার করা হয়। আর পুরী নামটির সঙ্গে স্বয়ং জগন্নাথ দেবের মাহাত্ম্য জড়িয়ে রয়েছে। সেটিই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই পুরীর পরিচয় বদলানোর কোনও প্রয়োজন নেই বলেই মত তাঁর।এখন শুধু সময় বলবে যে আদতে পুরীর নাম পাল্টাতে চলেছে নাকি একা থাকতে চলেছে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button