রান্নাঘরের তাকে হাত দিতেই বেরিয়ে এলো বিশাল বড় কো-ব-রা সাপ! ঘটলো চরম বিপত্তি! তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-পৃথিবীর এমন একটা সরীসৃপ প্রাণী যাকে ভ-য় করে প্রত্যেকে । তার কারণ তার এক ছো-বলে জীবন সম্পূর্ণ রকমভাবে শেষ হয়ে যেতে পারে । এমনকি একটা আস্ত জীবন শেষ করতে মাত্র ১৫ মিনিট সময় লাগবে । অর্থাৎ ভাবতেই পারছেন যে কি ভ-য়-ঙ্কর এই সরীসৃপ প্রাণী । আকারে তেমন বড় না হলেও তাবড় তাবড় পশু-পাখি জন্তু-জানোয়ার এমনকি পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জীব মানুষকে মুহুর্তের মধ্যে শেষ করে দিতে পারে।এবার সেই সরীসৃপ বিষাক্ত প্রাণী টি যদি আপনার বসতবাড়ির রান্নাঘরে উপস্থিত হয় তাহলে অতি অবশ্যই আপনি ভয় পাবেন ।। আর ভয় পাওয়াটা ভীষণ স্বাভাবিক । সেই চিত্র দেখা গেল এই ভিডিওর মাধ্যমে ।

সাপ সম্পর্কে একটা ভয় প্রতিটি মানুষের মনে ভয় কাজ করে কারণ যদি একবার সেটি ছোবল মারে এবং কোন কারনে বি-ষ যদি শরীরের মধ্যে প্রবেশ করে যায় তাহলে কিন্তু মরণ অনিবার্য । তাই সাপের নামে একটা ভয় বা আ-ত-ঙ্ক কাজ করে মানুষের মনে । এর পাশাপাশি সাপ সম্পর্কে অনেক কুসংস্কার রয়েছে গোটা ভারত বর্ষ জুড়ে ।

সম্প্রতি ইউটিউবে একটি ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে এবং বলাবাহুল্য মোটামুটি ভালো রকম ভাবে ভাইরাল হয়েছে । সেখানে একটি বাড়ির রান্না ঘরে লুকিয়ে ছিল একটি বিষ-ধ-র সাপ । এবং তারা তাদের স্থানীয় এক সাপুড়ে কে খবর দেয় । ঘটনাস্থলে পৌঁছায় সাপুরে এবং তিনি গিয়ে দেখে সেটি অত্যন্ত বি-ষ-ধর সাপ যার নাম কোব-রা ।

বিভিন্ন ধরনের জাত হয় তবে এটি নাকি সব থেকে বেশি ভ-য়ঙ্ক-র বলে চিহ্নিত করেন ওই সাপুড়ে । এর পাশাপাশি বাড়ির লোকের সাথে সাথে তার অধিকাংশ লোক ভয়ে ভীত সন্ত্র-স্ত হয়ে গিয়েছিল । কারণ এই ধরনের সাপ অত্যন্ত উগ্র মেজাজের হয়ে থাকে । যেকোনো সময় ছোবল মারতে পারে যে কাউকে আর একবার ছো-ব-ল মারলে জীবন শেষ ।

সেই সাপুড়ে কে অসম্ভব ভাবে তারা করে আসছিল সেই কোবরা । রীতিমতো ফ-ণা তুলে ভ-য় দেখাচ্ছিলো বাকি সকল দেরকে । কিন্তু দীর্ঘক্ষণ এর লড়াই জারি রাখার পর অবশেষে সেই সাপটি কে ধরতে সক্ষম হয় সেই সাপুড়ে । এবং সেই তিনি একটি প্লাস্টিকের বড় জায়গা থেকে ভরে নিয়ে চলে যান পরবর্তীকালে কোথাও ছেড়ে দেবেন বলে । ঘটনাটি ঘটেছে উড়িষ্যার এক গ্রামে। তবে আমাদের এই ধরনের ঘটনা থেকে সব সময় সচেতন থাকতে হবে এবং শিক্ষা নিতে হবে । যে বাড়ির আশেপাশে যে কোন জায়গা ভালো মতন ভাবে দেখে শুনে তারপরে কাজ করা উচিত ।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button