সমুদ্রের বিচে স্বামীর সঙ্গে রোমান্স করছেন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস! মুহূর্তে ভাইরাল ভিডিও।

“ত্রিনয়নী” ধারাবাহিকের প্রথম অভিনেত্রী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে শ্রুতি দাস। সকলের কাছে বেশ পরিচিত এবং চেনামুখ হয়ে যায় এই অভিনেত্রী,এই ধারাবাহিকের মাধ্যমে বিপুল পরিমাণে ভালোবাসা পায় দর্শকদের কাছ থেকে। নানা রকম কারণেই এই অভিনেত্রী মাঝে মাঝেই খবরের শিরোনামে উঠে আসে। বেশ কিছুদিন ধরেই নেটিজেনদের তরফ থেকে তাঁকে নানান রকম ভাবে হেনস্থা করা হচ্ছে, তার গায়ের রঙের ওপর ভিত্তি করে যদিও এই রকম হেনস্তার কড়া জবাব দিয়েছেন অভিনেত্রী এবং অবশ্যই সেটা দেওয়া উচিত। কারণ সবকিছুর জন্যই গুণেরও পরিচয় দিতে হয় এবং সেটাতে এগিয়ে রয়েছেন শ্রুতি দাস।

ত্রিনয়নী ধারাবাহিকের পর তাকে এখন দেখা যাচ্ছে স্টার জলসায় বেশ জনপ্রিয় ধারাবাহিক “দেশের মাটিতে”। ধারাবাহিকে অভিনয় করেই সকলের যখন পরিচিতিমূলক হয়ে উঠল শ্রুতি দাস তার পরপরই সকলের সামনে এলো শ্রুতি দাসের প্রেমের কাহিনী। নিজেই এই প্রেমের কাহিনী সকলকে জানিয়েছেন এবং ত্রিনয়নী ধারাবাহিকের পরিচালক স্বর্ণেন্দু সমাদ্দারের সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন তিনি এবং তার পর থেকেই ইন্ডাস্ট্রির বেস চর্চিত জুটি হিসাবে পরিচিত হয়েছে।

শ্রুতি জানিয়েছিলেন যে, ত্রিনয়নীতে শুটিং করতে করতেই পরিচালক স্বর্ণেন্দু প্রেমে তিনি পড়ে গিয়েছিলেন এবং ১৪ বছরের বড় হলেও সেই পরিচালককে তিনি নিজে থেকে সাহস করে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। প্রথমদিকে শ্রুতি দাসের প্রেমের প্রস্তাব পরিচালক স্বর্ণেন্দু গ্রহণ করেননি, তবে ত্রিনয়নীর ভালোবাসায় পরিচালককে গলতেই হতো। অন্যান্য অভিনেত্রীদের থেকে শ্রুতি দাস কিছুটা হলেও আলাদা কারণ, তিনি একদমই ঢেকেঢুকে রাখেন নানা তার প্রেমের কথা, কারণ তিনি তার প্রেমের গল্প শুরু হওয়ার পরপরই সকলকে নিজেই জানিয়ে দিয়েছিলেন এবং মাঝে মাঝেই স্বর্ণেন্দু সমাদ্দারের সঙ্গে তার ভালোবাসা এবং আবেগপূর্ণ ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন।

সম্প্রতি তার একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। শ্রুতি দাস ইনস্টাগ্রামে তার এই প্রেমের এবং আবেগপূর্ণ ভিডিও শেয়ার করেছেন অনুগামীদের সঙ্গে। তাকে দেখা যাচ্ছে একটি সুইমিং পুলের মধ্যে স্বর্ণেন্দুর সঙ্গে রোমান্স করতে। পুলের মধ্যে জলের সঙ্গে যেন এই জুটি খেলা করছেন। ওই ভিডিওর নিচে ক্যাপশন লিখেছেন “মিলা মিলা কই মিলা”। আপাতত জমিয়ে প্রেম করছেন এই জুটি কারণ, একদিকে তো নিজেদের ভালোবাসা রয়েছে তার পরে আবার রয়েছে সাথে দুই পরিবারের আশীর্বাদ।’

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button